Space For Advertisement

শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে এল.জি.ই.ডি’র অর্থায়নে ১২ কি.মি রাস্তা নির্মাণের কাজ শেষ

শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে এল.জি.ই.ডি’র অর্থায়নে ১২ কি.মি রাস্তা নির্মাণের কাজ শেষ

ঢাকা, সোমবার, ১৭ জুলাই ২০১৭ (মো. আবু রায়হান) : শেরপুর জেলার ঝিনাইগাতী উপজেলায় প্রায় ১১ কোটি টাকার অর্থায়নে এল.জি.ই.ডি’র উদ্দ্যোগে ৪টি ইউনিয়নের সংযোগ রাস্তাটির কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। নির্মাণাধীন ১২ কি.মি পাকা রাস্তা উক্ত রাস্তাটি কাংশা ইউনিয়ন গুরুচরণ দুধনই থেকে ঝিনাইগাতী সদর রাস্তা সওজ’য়ের সাথে সংযুক্ত হয়েছে। এই রাস্তাটি নির্মানের ফলে কাংশা, ধানশাইল, নলকুড়া ও ঝিনাইগাতী ইউনিয়নের লক্ষাধিক লোত যাতায়াতের পথ উন্মুক্ত হলো। উল্লেখ্য, এই দীর্ঘ ১২ কি.মি যাতায়াতের রাস্তা লক্ষাধিক লোকের চরম দূর্ভোগের স্বীকার হতো। এলজিইডি বিভাগের অর্থায়নে রাস্তাটি নির্মানের ফলে সীমান্তবর্তী উপজেলার গ্রামাঞ্চলের উক্ত রাস্তার সংযোগের ফলে স্কুল কলেজের ছাত্র/ছাত্রী ও কৃষকদের কৃষি পন্য বাজার জাত করা অত্যান্ত সহজ হলো। প্রায় ৩০/৪০ গ্রামের লক্ষাধিক মানুষ সহজেই পরিবহনের মাধ্যমে বাড়িতে যাতায়াত করতে পারবে। উক্ত রাস্তা ছাড়াও অত্র ঝিনাইগাতী উপজেলার গ্রামাঞ্চলের সাথে যোগাযোগ সহজ করার জন্য আরো অনেকগুলো রাস্তা ও বড় বড় ব্রীজ নির্মান হয়েছে। প্রকাশ থাকে যে, স্বাধীনতার ৪৫ বছরের মধ্যে গত সাড়ে ৮ বছরে যে উন্নয়ন হয়েছে ৩যুগেও সে উন্নয়ন হয়নি। বর্তমান সংসদ সদস্য এ.কে.এম ফজলুল হক চাঁন সাহেবের প্রচেষ্টায় পশ্চাৎপদ উপজেলার প্রত্যেক বিভাগের মাধ্যমে নানামুখি উন্নয়ন করা হয়েছে। দূর্যোগ ও ত্রান শাখার উদ্দ্যোগে উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের প্রায় অর্ধ শত মাঝারী ধরণের ব্রীজ নির্মাণ করা হয়েছে। গত ৮ বছরে বহু নতুন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়েও উঠেছে। এতে অত্র উপজেলার উন্নয়নে শিক্ষা খাতে ব্যাপক উন্নয়ন হওয়ার ফলে শিক্ষার হার পূর্বের চেয়ে বহুগুন বৃদ্ধি পেয়েছে। উন্নয়নের প্রথম ধারা শিক্ষা ও যোগাযোগ আর এই বিষয়গুলি অত্যান্ত গুরুত্বদিয়ে কাজ করায় বর্তমানে শিক্ষার ব্যাপক প্রসারতা বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে শিক্ষা ও যোগাযোগের ক্ষেত্রে উল্লেখ্যযোগ্য উন্নয়ন হওয়ায় অত্র উপজেলার সার্বিক কল্যান সাধিত হয়েছে। 

 


সংশ্লিষ্ট আরও খবর

সর্বশেষ খবর

Today's Visitor