Space For Advertisement

ফুলকপি ও বাঁধাকপির উপকারিতা জানুন

ফুলকপি ও বাঁধাকপির উপকারিতা জানুন

ঢাকা, বুধবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৭ (স্বাস্থ্য ডেস্ক) :

* কপি স্তনের দুধ বাড়িয়ে দেয়, মধুর, বীর্যবর্ধক, শীতল, দীপন (কর্মপ্রেরণা দেয়, উদ্দীপ্ত করে), সহজে হজম হয়, বাত সৃষ্টি করে এবং পিত্ত ও কফ নাশ করে।

* ফুলকপি ও বাঁধাকপি রসে মধুর, বিপাকে তিক্ত, শীতল করে, লঘু দীপন (উদ্দীপ্ত করে), পাচন (সহজে হজম হয়), কামোত্তেজক, হার্টের পক্ষে ভালো, মল মূত্র প্রবর্তক এবং বাতকারক।

* কপি কফ, পিত্ত, জ্বর, প্রমেহ (যৌনব্যাধি) মূত্রকূচ্ছ (প্রস্রাব কম হওয়া) কুষ্ঠ, কাশি, শ্বাসকষ্ট, রক্তের দোষ (রক্তবিকার), লিভার বেড়ে যাওয়া রোগ, পিত্তের প্রকোপ এবং শরীরের ভেতরের ফোঁড়া বা দুষ্ট ব্রণ নাশ করে।
* গর্ভাশয়ের বল বৃদ্ধি করে।

* গাঁট কপি বা ওল কপি (যানে নকলল ) ইহা রসে মধুর, উষ্ণবীর্য। (উগ্রগুণ সম্পন্ন করা), সারক ( মলমূত্র ও বায়ু নিস্কাষণ করে), রুচিকর, গুরু (হজম দেরিতে হয়), কফনাশক, বাতকারক এবং পিত্ত প্রকোপক।
* কপির বীজ সারক ( বায়ু ও মল-মুত্র নিস্কাশনের সাহায্য করে) কর্মে উদ্দীপক করে (দীপন) পাচন (সহজে হজম হয়) এবং কৃমিনাশক।
* যারা রক্তপিত্ত (স্কার্ভি) রোগে ভুগছেন তাদের কপি খাওয়া ভালো।


পুষ্টিগুন
ফুল কপিতে ভিটামিন বি, ভিটামিন সি, ক্যালসিয়াম, আয়রন, ম্যাগনেসিয়াম ও জিংক আছে।

পুষ্টির তালিকায়ঃ প্রতি ১০০গ্রাম কপিতে আছে-
কার্বোহাইড্রেট- ৪ গ্রাম.
ক্যালসিয়াম- ৩৩মিগ্রা.
প্রোটিন- ২.৬গ্রাম.
ফসফরাস- ৫৭ মিগ্রা.
ফ্যাট- ০.৬ গ্রাম.
লোহা- ১.৫ মিগ্রা.
আঁশ-
পটাশিয়াম- ১৩৮ মিগ্রা.
ভিটামিন- ‌‘এ’ -৫১ আই. ইউ
সোডিয়াম- ৫৩মিগ্রা.
নিকোটিনিক অ্যাসিড- ১ মিগ্রা
ভিটামিন- ‘সি’- ৫৫মিগ্রা.


সংশ্লিষ্ট আরও খবর

সর্বশেষ খবর

Today's Visitor