রবিবার, ২০শে জুলাই, ২০১৯ ইং

১৪ বছর পর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছেদিনাজপুর জেলা যুবদলীগের কাউন্সিল

মুক্তখবর :
এপ্রিল ২৮, ২০১৯
news-image

সুবির চক্রবর্তী ছোটন, দিনাজপুর :  প্রায় ১৪ বছর পর জেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিল সম্মেলন আগামী ২ মে অনুষ্ঠিত হবে। তবে এক যুবলীগ নেতার আশংকা এ জেলা আওয়ামী যুবলীগের কাউন্সিল ভুন্ডুল করা চেষ্টা করছে আওয়ামীলীগের একটি অংশ। তার দাবী জেলা আওয়ামী যুবলীগের কাউন্সিলে কয়েকটি প্যানেল প্রতিদ্বন্দ্বীতায় অংশগ্রহন করছে। আওয়ামীলীগের যে অংশ যুবলীগের কাউন্সিল ভুন্ডুল করা চেষ্টা করছে তারাও একটি প্যানেলকে সমর্থন দিয়েছে। তবে তাদের প্যানেল হেরে যাওয়ার সম্ভবনা অনেকাংশ তাই তারা আগামী ২ মে তারিখে অনুষ্ঠিতব্য জেলা যুুবলীগ কাউন্সিল ভুন্ডুলের পায়তারা করছে। দিনাজপুর জেলা আওয়ামী যুবলীগের কাউন্সিলকে কেন্দ্র করে দিনাজপুর শহরে পোস্টার, বিলবোর্ড ও কাউন্সিলদের সক্ষতা সৃষ্টির জন্য কাউন্সিলরদের বাড়ী যাচ্ছে জেলা যুবলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক প্রার্থীরা। সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদ দুটিতেই কাউন্সিলরা ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। নির্বাচিত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পরে নিচের ইচ্ছামত পরে ১০১ জনের পূর্নাঙ্গ কমিটি গঠন করে কেন্দ্রীয় যুবলীগের দপ্তরে পাঠানো হবে। কমিটি সুত্রে জানা গেছে, আওয়ামী যুবলীগের সম্মেলনকে কেন্দ্র করে জেলা সদর সহ ১৩টি উপজেলায় চলছে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা। দিনাজপুরে এ সম্মেলন ও কাউন্সিলে সমগ্র জেলার মোট ৪২১ জন কাউন্সিল তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করে আগামী ৩ বছরের জন্য জেলা আওয়ামী যুবলীগ তাদের পছন্দের নেতৃত্ব নির্বাচন করবেন। এ সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক যুবলীগ চেয়ারম্যান ও সাবেক মন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানক। সম্মেলন উদ্বোধন করবেন, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী। প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখবেন, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সাধারন সম্পাদক হারুন অর রশিদ। এবারে জেলা যুবলীগের কাউন্সিলে সভাপতি পদে হেভিওয়েট ৩ জন সহ মোট ৫জন ও সাধারণ সম্পাদক পদে হেভিওয়েট মোট ৫ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। প্রতিব্দন্দ্বী সভাপতি প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন ঐতিহ্যবাহী ছাত্রলীগের পরপর দুরারের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সোহেল হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ইমরান লতিফ সেতু, জেলা যুবলীগের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক ও জেলা আওয়ামীলীগের হাজী মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম এ্যাডভোকেট, রাশেদ পারভেজ ও জাকির হোসেন। সাধারণ সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন সাবেক জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি ও জেলা আওয়ামীলীগের সমর্থিত রবিউল আলম রবু, জেলা যুবলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মামুন-উর রশিদ, জেলা যুবলীগ নেতা আনোয়ার হোসেন, সাদেকুর রহমান টুটুল ও সাইফুল ইসলাম ম্যাঙ্গো। কাউন্সিলরা এ কাউন্সিলকে ঘিরে ব্যাপক প্রচারনায় উৎসাহ ও উদ্দীপনা উপভোগ করছে।