বৃহস্পতিবার, ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং

আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্বেও ভবন নির্মাণ কাজ অব্যাহত

মুক্তখবর :
এপ্রিল ২৯, ২০১৯
news-image

ঢাকা, সোমবার, ২৯ এপ্রিল ২০১৯ (গোপালগঞ্জ সংবাদদাতা) : গোপালগগঞ্জ সদর উপজেলাধীন রঘুনাথপুর ইউনিয়নের পারকুশলী গ্রামে ৬২/১৯ নং দেওয়ানী মামলা এবং বিষয়ে বাদি পক্ষের অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা প্রার্থনার প্রেক্ষিতে বিবাদী পক্ষ কর্তৃক কার্য্য না করার জন্য বিজ্ঞ সদর সহকারী জজ আদালত গোপালগঞ্জ কর্তৃক নিষেধাজ্ঞা জারি করা সত্বেও বিবাদী পক্ষ পাকা ভবন নির্মাণের কাজ অব্যাহত রেখেছেন। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, বাদী পক্ষ মামুন খান কর্তৃক আদালতে মামলা করায় (মামলা নং-৬২/১৯) এবং বিষয়ে বিবাদী পক্ষের বিরূদ্ধে অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার প্রার্থনার প্রেক্ষিতে বিজ্ঞ সদর সহকারী জজ আদালত গোপালগঞ্জ দেওয়ানী কার্য্যবিধি আইন, হুকুম ৩৯, নিয়ম ১ মোতাবেক বিবাদী পক্ষের আমির হোসেন (রোং মিয়া) গং কর্তৃক জোর পূর্বক ভোগ দখলকৃত আর,এস,এ এবং এস,এ ১১১ নং পারকুশলী মৌজার আর, এস ৬৯০ ঈড়ৎৎবংঢ়ড়হফরহম ঃড় এস,এ ৭৯৩ নং খতিয়ানের আর, এস ও এস,এ ৯২৩ নং দাগের ৪১ শতাংশ বাড়ির ভূমি যাহা বি,আর,এস ৪৭, ৬০, ২৯৫, ৪৮৭, ৬০৮, ৬২৮ খতিয়ানে বি,আর,এস ২৩২০ দাগে ৪১ শতাংশ বাড়ির ভূমি রেকর্ড হয়েছে, উহার মধ্যে বাদিগণের দাবিকৃত ৫.১৫ শতাংশ বাড়ির ভূমিতে মামলার মীমাংসা না হওয়া পর্যন্ত কোনোরূপ কার্য্য না করার জন্য গত ০৯.০৪.২০১৯ তারিখে অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বিবাদী পক্ষ তাদের কার্য্য চালিয়ে যাওয়ার খবরে গোপালগঞ্জ সদর থানা পুলিশ নিষেধাজ্ঞা জারিকৃত স্থানে গিয়ে বিবাদী পক্ষের লোকজনকে কার্য্য বন্ধ রাখতে নির্দেশ দিয়ে চলে আসার পরে পুনরায় তারা তাদের কার্য্য চালিয়ে যাচ্ছেন। আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বিবাদী পক্ষ কর্তৃক ভবন নির্মাণ কার্য্য অব্যাহত প্রসঙ্গে আমির হোসেন মোবাইল ফোনের মাধ্যমে জানান, “আদালত এই অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞাকে ভ্যাকেট করে দিয়েছে, এজন্য আমরা কাজ করছি। ভ্যাকেটের কাগজ দেখতে চাইলে এতদ্বিষয়ে তিনি কোনো প্রকার কাগজ বা প্রমান দেখাতে পারেননি। এ বিষয়ে বাদী পক্ষ নিষেধাজ্ঞা অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে আদালতের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।