বুধবার, ১৩ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং

হিজলায় গৃহবধূকে গণধর্ষণের অভিযোগ, আটক ১

মুক্তখবর :
জুন ৮, ২০১৯
news-image

ঢাকা, শনিবার, ০৮ জুন ২০১৯ (নিজস্ব প্রতিনিধি): বরিশালের হিজলায় এক গৃহবধূকে (২৫) গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে শুক্রবার (৭ জুন) রাতে একজনকে আটক করেছে থানা পুলিশ। জানাগেছে, নির্যাতিতা গৃহবধূর বাড়ি মেহেন্দিগঞ্জের ধুলিয়া মধ্য চর গ্রামে। শুক্রবার (৭ জুন) বিকেলে বরগুনা জেলার আমতলী উপজেলার ছোটবগি গ্রামের বাসিন্দা ও অটোরিকশাচালক জাকির হোসেন গোলন্দাজের সঙ্গে হিজলার সাহাবুদ্দিন চৌধুরী পাড়ায় ঘুরতে যান তিনি। এসময় স্থানীয় একদল বখাটে তাদের পিছু নেয় ও জাকিরকে মারধর করে। পরে গৃহবধূকে ওই এলাকার একটি বাগানে ভেতর নিয়ে গণধর্ষণ করে বলে অভিযোগ উঠেছে। হিজলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুদুর রহমান বলেন, স্থানীয়দের মাধ্যমে ঘটনাটি জানতে পেরে থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মঈনুদ্দিন আহমেদসহ পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে গিয়ে নির্যাতিতা গৃহবধূ ও সঙ্গে থাকা যুবককে উদ্ধার করে। পাশাপাশি, ঘটনায় জড়িত সন্দেহে মামুন নামে এক কিশোরকে আটক করা হয়। ওসি বলেন, গৃহবধূকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তিনি জানিয়েছেন, ৪-৫ জন মিলে তাকে জোর করে ধর্ষণ করেছে। আটক মামুনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ না থাকলেও, এতে সহযোগিতার অভিযোগ রয়েছে। তার মাধ্যমে পলাতক ধর্ষকদের নাম-পরিচয় জানা গেছে। তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। মাসুদুর রহমান বলেন, গৃহবধূ তার স্বামীর সঙ্গে ঢাকায় থাকেন। জাকির গোলন্দাজ বরিশালে অটোরিকশা চালান। ঈদের ছুটিতে বাবার বাড়িতে বেড়াতে আসেন ওই গৃহবধূ। তাদের দাবি, জাকিরের সঙ্গে গৃহবধূর তেমন কোনো সম্পর্ক নেই। মেহেন্দিগঞ্জের উলানিয়া খেয়াঘাটে তাদের পরিচয় হয়। সে সূত্র ধরেই তারা একসঙ্গে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে বখাটেরা জাকিরকে মারধর ও গৃহবধূকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ করে। ওসি আরও বলেন, পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এ ঘটনায় জাকিরের সম্পৃক্ততা আছে কি-না সে বিষয়েও জানার চেষ্টা করছি। ধর্ষণের অভিযোগে গৃহবধূ বাদি হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। শনিবার (৮ জুন) সকালে শারীরিক পরীক্ষার জন্য তাকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে পাঠানো হবে।