বৃহস্পতিবার, ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং

নাটোরে পুলিশের তাড়া খেয়ে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে যুবকের মৃত্যু

মুক্তখবর :
জুলাই ৭, ২০১৯
news-image

ঢাকা, রোববার, ০৭ জুলাই ২০১৯ (নিজস্ব প্রতিনিধি): নাটোরের বাগাতিপাড়ায় পুলিশের তাড়া খেয়ে বড়াল নদীতে ঝাঁপ দিয়ে আব্দুল আজিজ (২৮) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার (০৬ জুলাই) বিকেলে দয়ারামপুর ইউনিয়নের চন্দ্রখইর এলাকায় বড়াল নদীতে এ মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। তার মরদেহ পাশের বড়াইগ্রাম উপজেলার রামাগাড়ি এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয়। তবে পুলিশ এসব অভিযোগ অস্বীকার করে শেওলায় জড়িয়ে তার মৃত্যু হয়েছে বলে দাবি করেছে।

নিহত আজিজ উপজেলার চন্দ্রখইর গ্রামের সিরাজুল ইসলাম শেখের ছেলে। সে রাজ মিস্ত্রির কাজ করে বলে দাবি করে পরিবার ও এলাকাবাসী। পানিতে পড়ে মৃত্যুর খবর পেয়ে দয়ারামপুর ফায়ার স্টেশনের কর্মীরা গিয়ে তার মরদেহ উদ্ধার করে। একই সময় পুলিশও সেখানে গিয়ে উপস্থিত হয় বলে জানায় ফায়ার স্টেশন কর্মীরা।

এদিকে ঘটনার পর স্থানীয় জনগন পুলিশের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ প্রদর্শন করলে এলাকায় উত্তেজনা দেখা দেয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

নিহতের পরিবার ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, শনিবার বেলা ২টার দিকে বাগাতিপাড়া থানার পুলিশ চন্দ্রখইর এলাকায় মাদক বিরোধী অভিযান চালানোর সময় আজিজুল ইসলাম পার্শ্ববর্তী বিদ্যুৎ নগর বাজার থেকে ওই পথ দিয়ে বাড়ি ফিরছিল।

এ সময় পুলিশ মাদক ব্যবসায় জড়িত থাকা নিয়ে তাকে চ্যালেঞ্জ করে। কথোপকথনের এক পর্যায়ে আজিজ দৌড়ে পালিয়ে ওই এলাকা দিয়ে যাওয়া বড়াল নদীতে ঝাঁপ দেয়। নিহতের বড় ভাই রাশিদুল ইসলাম  জানান, বাগাতিপাড়া থানা পুলিশের এস আই সাজ্জাদ ও তার সঙ্গে থাকা অপর একজন কনস্টেবল তার ছোট ভাই আজিজুলকে তাড়া দিয়েছিল। ওই তাড়া খেয়েই তার ছোট ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছে। এ বিষয়ে তারা মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

বাগাতিপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সিরাজুল ইসলাম জানান, শেওলায় আটকে আজিজের মৃত্যু হয়েছে বলে প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে। পুলিশের তাড়া খেয়ে মৃত্যুর বিষয়ে জানতে চাইলে তদন্ত শেষে বিস্তারিত বলা যাবে বলে জানান তিনি।