শুক্রবার, ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং

ভিড় বাড়ছে কাঁঠালবাড়ী ঘাটে

মুক্তখবর :
আগস্ট ১৭, ২০১৯
news-image

ঢাকা, শনিবার, ১৭ আগষ্ট ২০১৯ (স্টাফ রিপোর্টার) : রোববার (১৮ আগস্ট) থেকে শুরু হচ্ছে কর্মদিবস। এরই মধ্যে শেষ হয়েছে ঈদের ছুটি। ঈদের লম্বা ছুটি কাটিয়ে কর্মস্থলে যোগ দিতে রাজধানীতে ফিরতে শুরু করেছে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষ। শনিবার (১৭ আগস্ট) সকাল থেকেই মাদারীপুরের শিবচরের কাঁঠালবাড়ী ঘাটে রয়েছে যাত্রীদের ভিড়। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে রাজধানীমুখো যাত্রীদের সংখ্যা। লঞ্চ, স্পিডবোট ও ফেরিতে করে পদ্মা পার হচ্ছে যাত্রীরা। এদিন ভোরের আলো ফোটার আগে বেশ কিছুক্ষণ বৃষ্টি ছিল। তবে সকাল থেকে বৃষ্টি না হলেও আকাশ মেঘলা রয়েছে। সেই সঙ্গে হালকা বাতাসও বইছে। এদিকে দ্রুত পদ্মা পার হতে হবে এমন তাড়া থেকে স্পিডবোটে যাত্রীদের ভিড় দেখা গেছে। পদ্মা উত্তাল থাকায় স্পিডবোটগুলোতে রয়েছে পর্যাপ্ত লাইফ জ্যাকেট। শৃঙ্খলা বজায় রাখতে স্পিডবোট ঘাটে সার্বক্ষণিক মনিটরিং করছে পুলিশের সদস্যরা। টানা বেশ কিছুদিন বাড়িতে থেকে ঢাকায় ফিরতে মন টানছে না এমন অভিমত ব্যক্ত করে গোপালগঞ্জ থেকে আসা যাত্রী মাসুদ বলেন, ঈদের ছুটিতে বেশকিছু দিন বাড়িতে ছিলাম। কেন যেন যেতে ইচ্ছা করছে না, মন চাইছে আরও কিছুদিন থাকি। কিন্তু আগামীকালই কাজে যোগ দিতে হবে। আর তাই যাওয়া ছাড়া উপায় নেই। তিনি আরও বলেন, ঘাটে ভিড় বাড়ার আগেই পদ্মা পার হতে বাড়ি থেকে খুব ভোরে রওনা দিয়েছি। কিন্তু ঘাটে এসে দেখি প্রচণ্ড ভিড়। পাভেল হাসান নামে ঘাটের আরেক যাত্রী বলেন, বাড়িতে এলে আর ঢাকায় যেতে মন চায় না। জীবিকার তাগিদে ইচ্ছে থাকলেও বাড়িতে থাকা হয় না বেশি দিন। অন্যদিকে স্পিডবোটে বাড়তি ভাড়া নেওয়া হচ্ছে অভিযোগ করে অনেকে বলেন, ২০০ টাকা করে স্পিডবোটে নিচ্ছে। অথচ আগে ছিল ১৫০ টাকা। তবে মূলভাড়া হচ্ছে ১৩০ টাকা। সারা বছরই ভাড়া বেশি নেয়। আর ঈদ এলে আরও বেশি। বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিসি) কাঁঠালবাড়ী ঘাট সূত্র জানায়, সকাল থেকে আবহাওয়া ভালো থাকায় নৌ চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। ৮৭টি লঞ্চ, ১৭টি ফেরি ও ২ শতাধিক স্পিডবোট চলছে। এছাড়া ঘাট এলাকায় ব্যক্তিগত গাড়ির বেশ চাপ রয়েছে। তবে সবকটি ফেরি চলাচল করায় সমস্যা হচ্ছে না।

লঞ্চ ঘাট সূত্র জানায়, সকাল থেকেই লঞ্চে যাত্রীদের চাপ রয়েছে। ধারণ ক্ষমতা অনুযায়ী যাত্রীদের পার করা হচ্ছে।

শিবচর উপজেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, ঈদ শেষে কর্মস্থলে ফেরা যাত্রীদের কাঁঠালবাড়ী ঘাটে নির্বিঘ্নে পারাপার নিশ্চিত করতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। পুলিশ, র্যাব, আনসার, ভ্রাম্যমাণ আদালত ও স্বেচ্ছাসেবক কাজ করে যাচ্ছে ঘাট এলাকায়।

বিআইডব্লিউটিএ’র কাঁঠালবাড়ী লঞ্চ ঘাটের ট্রাফিক ইন্সপেক্টর আক্তার হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, নদী শান্ত থাকায় লঞ্চ ও স্পিডবোটে যাত্রীদের ভিড় সকাল থেকেই বেশি। নৌরুটে সব নৌযান চলাচল স্বাভাবিক থাকায় যাত্রীরা স্বাচ্ছন্দে পার হতে পারছেন।