শুক্রবার, ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং

গ্রুপ চ্যাট বন্ধ করছে ফেসবুক

মুক্তখবর :
আগস্ট ১৮, ২০১৯
news-image

ঢাকা, রোববার, ১৮ আগষ্ট ২০১৯ (আইটি ডেস্ক) : গত বছরের অক্টোবরে চালু হওয়া ‘গ্রুপ চ্যাট’ সেবাটি বন্ধ করার ঘোষণা দিয়েছে ফেসবুক। আগামী ২২ আগস্ট থেকে এ সেবাটি বন্ধ হয়ে যাবে। গ্রুপ চ্যাট ফিচারটি তৈরি করা হয়েছিল গ্রুপ পোস্টে কমেন্টের থেকে আরো ঘনিষ্ঠভাবে যেন গ্রুপের সদস্যরা নিজেদের মধ্যে আলোচনা করতে পারে। ফেসবুক কেন এই জনপ্রিয় ফিচারটি বন্ধ করে দিচ্ছে, তার কারণ এখনো পরিষ্কার নয়। ফেসবুকের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আগামী ২২ আগস্ট থেকে ফেসবুকে বিদ্যমান গ্রুপগুলোতে নতুন করে আর গ্রুপ চ্যাটিং করা যাবে না, তবে আগের চ্যাটিংগুলো দেখা যাবে। স্যোশাল সাইটটি এক পোস্টে জানিয়েছে, ‘আমাদের টিম জানে যে, ফেসবুকে গ্রুপগুলোর জন্য রিয়েল টাইমে চ্যাটিং খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি ফিচার। কিন্তু বর্তমানে ফেসবুকে অ্যাপের সিস্টেমের সঙ্গে গ্রুপ চ্যাট ফিচারটি প্রযুক্তিগতভাবে সাপোর্ট করতে পারছে না। আমরা গ্রুপগুলোর জন্য রিয়েল-টাইমে চ্যাটিং করার নতুন উপায় বের করার জন্য কাজ করছি। তবে এখনই বিস্তারিত কিছু জানানো সম্ভব হচ্ছে না।’ আপাতত দৃষ্টিতে প্রযু্ক্তিগত সীমাবদ্ধতায় গ্রুপ চ্যাট ফিচারটি বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে বলে মনে হচ্ছে। ম্যাসেঞ্জার অ্যাপটি যে প্রযুক্তিতে নির্মিত হয়েছে, তাতে এটি ১.৩ বিলিয়ন ব্যবহারকারীকে চ্যাটিং সুবিধা প্রদান করছে। ফলে সমালোচকরা ফেসবুকের সীমাবদ্ধতায় ফিচারটি বন্ধ করার কারণকে মূল কারণ বলে মনে করছেন না। অনেকে ধারণা করছেন, স্প্যামিং বেড়ে যাওয়া এবং গ্রুপের মাধ্যমে চ্যাটিং ভয়ানক বেড়ে যাওয়া মূল কারণ হতে পারে। টেকক্রাঞ্চের প্রতিবেদন অনুসারে, গ্রুপ চ্যাট ফিচারটি যখন চালু করা হয় তখন ২৫০জন গ্রুপ সদস্য একসঙ্গে চ্যাটিং করতে পারতো। গ্রুপের সদস্যরা ফেসবুকে পরস্পরের ফ্রেন্ড তালিকায় নেই কিন্তু একই গ্রুপের সদস্য। যার মানে দাঁড়ায়, কোনো গ্রুপের যেকোনো সদস্য চাইলে ফ্রেন্ডলিস্টে নেই এমন যে কাউকে স্প্যামিং মেসেজ পাঠাতে পারে। ফলে অনেক ব্যবহারকারী নিরাপত্তা সমস্যায় পড়ছিলেন। যদিও এই কারণটি গুঞ্জনমাত্র। ফেসবুকে গ্রুপে চ্যাট বন্ধ হলেও ফ্রেন্ডলিস্টে থাকা বন্ধুদের সঙ্গে গ্রুপ চ্যাট করা যাবে। ফ্রেন্ড লিস্টে নেই এমন বন্ধুরা গ্রুপে অ্যাড হতে পারবে না।