বুধবার, ১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং

টেকনাফে বন্দুকযুদ্ধে ২ রোহিঙ্গা মাদক পাচারকারী নিহত

মুক্তখবর :
আগস্ট ২২, ২০১৯
news-image

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ আগষ্ট ২০১৯ (নিজস্ব প্রতিনিধি) : কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলায় বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই রোহিঙ্গা মাদক পাচারকারী নিহত হয়েছেন। এসময় দুই বিজিবি সদস্য আহত হন। বৃহস্পতিবার টেকনাফ হোয়াইক্যং উলুবনিয়া গ্রামের পূর্বপাশ বরাবর নাফনদী কাটাখাল এলাকায় বন্দুকযুদ্ধের এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে ৫০ হাজার পিস ইয়াবা, ১টি দেশীয় তৈরি বন্দুক, ৩ রাউন্ড কার্তুজ, ৩টি ধারালো কিরিচ জব্দ করেছে বিজিবি। নিহতরা হচ্ছেন উখিয়া কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মো. সাকের (২২) ও হ্নীলা মুছনী নয়াপাড়া ক্যাম্পের মো. আলী নুর আলম (৩০)। বিজিবির দাবি, নিহত রোহিঙ্গারা মাদক পাচারকারী ছিলেন। বন্দুকযুদ্ধের তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন বিজিবি টেকনাফ ২ ব্যাটালিয়নের উপ-অধিনায়ক মেজর শরিফুল ইসলাম জোমাদ্দার। তিনি বলেন, গতকাল রাতে টেকনাফ হোয়াইক্যং উলুবনিয়া গ্রামের পূর্বপাশ বরাবর নাফনদী কাটাখাল এলাকায় বিজিবির একটি বিশেষ টহলদল অবস্থান নেয়। কিছুক্ষণ পর টহলদল দূর হতে কয়েকজন লোককে হস্তচালিত কাঠের নৌকা নিয়ে নাফনদী পার হয়ে কাটাখালে প্রবেশ করতে দেখে। বিজিবি টহলদলের উপস্থিতি লক্ষ্য করা মাত্রই সশস্ত্র ইয়াবা পাচারকারী নৌকা লাফ দিয়ে টহলদলের উপর ধারালো অস্ত্র আক্রমণ করে ও অর্তকিত গুলিবর্ষণ করতে থাকে। এতে দুইজন বিজিবি সদস্য আহত হয়। গোলাগুলির’ পর ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় দুই ব্যক্তিকে উদ্ধার করে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখান থেকে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করা হলে চিকিৎসক আহত ব্যক্তিদেরকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক জানান, রাতে দুই ব্যক্তিকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় নিয়ে আসা হয়। তাদের দেহে কয়েকটি গুলির চিহ্ন ছিল। তাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় কক্সবাজার সদর হাসপাতালে স্থানান্তরের পরামর্শ দেওয়া হয়। এ ছাড়া বিজিবির দুই সদস্যকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়।