বুধবার, ১২ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং

দুর্গাপুরে বালুবাহী লড়ি, ট্রাকে বেহাল সড়ক, হুমকীতে জনজীবন

মুক্তখবর :
আগস্ট ২৭, ২০১৯
news-image

কলিহাসান,দুর্গাপুর(নেত্রকোনা)প্রতিনিধি:
নেত্রকোনার দুর্গাপুর চন্ডিগর ইউনিয়নের জনবহুল রাস্তা কেরনখলা বাজার মোড় হতে চন্ডিগর বাজার,কেরণখলা থেকে দুর্গাপুর কাচারীরোড়স্থ রাস্তা দিয়ে বালুবাহী ভারী লড়ি ট্রাক চলাচলে বিপর্যস্ত রাস্তা,চরম হুমকীতে জীবন-যাপন করছে পথচারী ও শিক্ষার্থীরা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখাগেছে, কেরণখলা খেয়া-ঘাটের পশ্চিম দিক থেকেই অসংখ্য বাংলা ড্রেজার বসিয়ে বালু উত্তোলন করছেন। ঐ উত্তোলিত বালু লড়ি ট্রাকে করে কেরণখলা রাস্তার চিকন ও সরু রাস্তা বেয়ে বালু পরিবহন করে যাচ্ছে একটি প্রভাবশালী মহল। এতে করে বেশক’টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষাপ্রতিষ্টানের শিক্ষার্থীদের স্কুলে আসতে নানা ভূগান্তির শিকার হতে হচ্ছে। ওই রাস্তার আশপাশে ১টি মহিলা মাদ্রাসাসহ কেরণখলা রেজিঃ স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদ্রাসা রয়েছে। আধুনিক মানের এতিমখানা ও অনাথালয়ের মতো একটি প্রতিষ্টানও বিদ্যমান।

স্থানীয়রা জানান, এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন ৩/৪শ লড়ি ট্রাক চলাচলে রাস্তার অবস্থা খুবই করুণ দশায় পরিণত হয়েছে। রাস্তা পার হওয়া তো দূরের কথা রাস্তা দিয়ে চলাচল করা অনেকটাই কঠিন হয়ে পড়েছে পথচারীদের। ঘন্টার পর ঘন্টা জ্যামলেগে থাকে ঐ রাস্তায়। এতে করে নানান ধরণের প্রতিবন্ধকতা তৈরী হচ্ছে স্কুলগামী শিক্ষার্থীদের। এমনকি শিশুরা স্কুলে যেতে ভয় পাচ্ছে।
চন্ডিগর বাজার (দুর্গাপুর-কলমাকান্দা)রাস্তার উপরে বালুর স্টক ব্যবসার অবাধ জমজমাটের ফলে নিত্যদিন লেগে থাকে এই যানজট। এতে করে বিপাতে পড়তে হচ্ছে পথযাত্রী,শিক্ষার্থী,মূমুর্ষ রোগী’র। এ যানজটের ফলে রাস্তা থেকে নেমে ফসলী জমির উপর দিয়ে চলচলা করতেও দেখা পথচারীদের। প্রশাসনের ভূমিকা দৃশ্যমান থাকলেও কার্যত মিলছে পূর্নাঙ্গ স্বস্তি জনমনে। এ সমস্যা উত্তরণে প্রশাসনের কঠোর ভূমিকা চান স্থানীয় সচেতন মহল ও ক্ষুদে শিক্ষার্থী,অভিভাবকবৃন্দ।
স্থানীয় একটি সিন্ডিকেট চক্র প্রভাবশালী মহলের যোগসাজসে অবৈধ বালুর স্টক ব্যবসা অবাধে চালিয়ে আসছেন বলে অভিযোগ স্থানীয়দের।

অন্যদিকে কাচারীমোড় হতে কেরণখলা রাস্তার উপর দিয়ে বালুবাহী ট্রাক চলাচল করছে দেদারছে, যেন দেখার কেউ নেই। ভুক্তভোগীরা জানান, এ ভারী বালুবাহী ট্রাক যানবাহন কেরনখলা-কাচারী মোড় রাস্তার উপর দিয়ে চলাচলে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে ইউএনও বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেছেন স্থানীয়রা। বালুবাহী ট্রাক চলাচল বন্ধ করতে রাস্তার মাঝখানে খুঁটি পুঁতে প্রতিবাদও করেছেন এলাকাবাসী।

সুশীল সমাজের এক প্রতিনিধি জানান,প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি হলো গ্রামকে শহরে পরিণত করা কিন্তু জানমাল, নিরাপত্তা নিয়ন্ত্রনে রাস্তার ভূমিকাও অপরিহার্য। তবে এই সরু রাস্তা ভারী যান-বাহন চলাচলের জন্য নয়। এ চলাচল যেকোন বড় ধরণের প্রাণহানির হুমকী।

লিখিত অভিযোগের বিষয়ে ইউএনও ফারজানা খানম’র নিকট মঙ্গলবার (২৭ আগষ্ট) ১২.৫৪ মিনিটে মুঠোফোনে জানতে চাইলে ফোন রিসিভ না করায় কোন মন্তব্য নেওয়া যায়নি।