সোমবার, ১৭ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং

সীমান্তে বিজিপির পুঁতে রাখা মাইন বিস্ফোরণে রোহিঙ্গা নিহত

মুক্তখবর :
সেপ্টেম্বর ৪, ২০১৯
news-image

ঢাকা, বুধবার, ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯ (নিজস্ব প্রতিনিধি) : বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় ঘুমধুম মিয়ানমার সীমান্তে সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিজিপি) পুঁতে রাখা মাইন বিস্ফোরণে অজ্ঞাত পরিচয়ে এক রোহিঙ্গা যুবক নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার রাতে বিজিবির সহযোগিতায় সীমান্ত অঞ্চল থেকে নিহত যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তবে তাৎক্ষণিকভাবে নিহতের পরিচয় পাওয়া যায়নি। তবে তিনি মিয়ানমারের রোহিঙ্গা নাগরিক বলে ধারণা করছে পুলিশ। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও স্থানীয়রা জানান, উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের তুমব্রূ সীমান্তের বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্ত অঞ্চলের ৩৮-৩৯ নম্বর পিলারের মধ্যবর্তী তুইঙ্গাপাড়া এলাকায় এক যুবকের মরদেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়। খবর পেয়ে বিজিবির সহায়তায় কাঁটাতারের বেড়ার পার্শ্ববর্তী এলাকা থেকে নিহতের মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ। তবে নিহতের পরিচয় এখনও পাওয়া যায়নি। ঘুমধুম পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইমন কান্তি চৌধুরী বলেন, ফোর্স নিয়ে মিয়ানমার সীমান্তের ঘটনাস্থল থেকে নিহতের মরদেহটি উদ্ধার করা হয়েছে। নিহতের নাম-পরিচয় পাওয়া যায়নি। তবে ধারণা করা হচ্ছে, নিহত যুবক রোহিঙ্গা। মিয়ানমার সীমান্তরক্ষীদের পুঁতে রাখা মাইন বিস্ফোরণে তার মৃত্যু হয়েছে। ঘটনাটি দু-একদিন আগে ঘটেছে বলে মনে হচ্ছে। নাইক্ষ্যংছড়ি থানার ওসি আনোয়ার হোসেন জানান, ধারণা করা হচ্ছে- মাইন বিস্ফোরণে নিহত যুবক মিয়ানমারের কোনো রোহিঙ্গা নাগরিক। সীমান্ত অঞ্চলে গেলে মিয়ানমারের পুঁতে রাখা মাইন বিস্ফোরিত হয়ে তার মৃত্যু হয়।