বৃহস্পতিবার, ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং

মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও অসাম্প্রদায়ীক মূল্যবোধ লালন এবং দেশপ্রেমে জাগ্রত হতে পারলে সহিংসতা প্রতিরোধ করা সম্ভব

মুক্তখবর :
সেপ্টেম্বর ৯, ২০১৯
news-image

সুবীর চক্রবর্তী ছোটন, দিনাজপুর প্রতিনিধি: দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক মোঃ মাহমুদুল আলম বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও অসাম্প্রদায়ীক মূল্যবোধ লালন এবং দেশপ্রেমে জাগ্রত হতে পারলে সহিংসতা প্রতিরোধ করা সম্ভব। সহিংসতা প্রতিরোধে ধর্মীয় অনুশাসনের কোন বিকল্প নেই। সব ধর্মই সহিংসতার বিপক্ষে। নিজের মতামত ব্যক্ত করতে না পারা, অন্যের মতামত না শোনা এবং অন্যের মতামতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল না হওয়ার ফলে সে সকল সংঘাত বা সহিংসতা ঘটে সেটাই হলো মতাদর্শিক সহিংসতা। বাঙালি সংস্কৃতি, ইতিহাস ও ঐতিহ্যকে ধারণ করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় অসাম্প্রদায়ীক মূল্যবোধ লালন করতে হবে।  ৯ সেপ্টেম্বর সোমবার জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে ঝানজিরা সমাজ কল্যান সংস্থা (জেএসকেএস)’র আয়োজনে ইউএসএআইডি’র অর্থায়নে এবং অবিরোধ রোড টু টলারেন্স প্রকল্পের আওতায় মতাদর্শিক সহিংসতা প্রতিরোধে স্থানীয় সরকার ও সুশীল সমাজের ভূমিকা শীর্ষক সংলাপ অনুষ্ঠানে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথাগুলো বলেন। জেএসকেএস দিনাজপুরের নির্বাহী পরিচালক মোস্তফা কামাল এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ঢাকা হতে আগত কনসালটেন্ট আব্দুস কুদ্দুস। বিষয়ভিত্তিক আলোচনা করেন প্রজেক্ট ম্যানেজার আসাদুজ্জামান আসাদ। মুক্ত আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন জেলা পরিষদের সদস্য ফয়সাল হাবিব সুমন, এসইউপিকে’র নির্বাহী পরিচারক মোজাফ্ফর হোসেন, হিন্দু বৌদ্ধ খৃষ্টান ঐক্য পরিষদের জেলা আহবায়ক সুনীল চবক্রবর্তী, বহুব্রী’র নির্বাহী পরিচালক জাকির হোসেন, সিটিএস এর নির্বাহী পরিচালক আমিনুল হক, হিন্দু ধর্মীয় নেতা দূর্যধন ব্যানার্জী, মাদ্রাসার সুপার আব্দুল গফুর, ব্লাস্টের সমন্বয়কারী এ্যাডঃ সিরাজুম মুনিরা, মহিলা পরিষদের সভাপতি কানিজ রহমান, অধ্যক্ষ আ ন ম নজরুল ইসলাম, প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক শফিকুল ইসলাম।