বুধবার, ১৯শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং

বুয়েটে ভর্তি পরীক্ষা শুরু

মুক্তখবর :
অক্টোবর ১৪, ২০১৯
news-image

ঢাকা, সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯ (বুয়েট প্রতিনিধি) : সপ্তাহব্যাপী বিক্ষোভ ও অস্থিরতার পর বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা শুরু হয়েছে। সোমবার (১৪ অক্টোবর) সকাল ৯টায় এ পরীক্ষা শুরু হয়। দুপুর ১২টা পর্যন্ত টানা ৩ ঘণ্টা এই লিখিত পরীক্ষা চলবে।

আজ সকাল থেকেই বুয়েটের ২ নম্বর গেটের সামনে অভিভাবকসহ ভর্তিচ্ছু পরীক্ষার্থীদের উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। এ সময় বুয়েট কর্তৃপক্ষ মাইকে বারবার ঘোষণা করছিলেন, শুধু ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারীরাই ভেতরে প্রবেশ করতে পারবেন। অভিভাবকদের গেটের বাইরে অবস্থান করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। পরীক্ষার্থীদের প্রবেশপত্র খুলে উঁচু করে তা হাতে নিয়ে গেটের দিকে এগোনোর জন্য আহ্বান করছি।’

নিরাপত্তার স্বার্থে বুয়েট ক্যাম্পাসের ভেতরে অভিভাবকদের প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না বলেও মাইকে জানানো হয়। এর আগে বুয়েটে ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের সব অনুষদ ও বিভাগের স্নাতক শ্রেণির ভর্তি পরীক্ষা সোমবার (১৪ অক্টোবর) যথারীতি সময়ে অনুষ্ঠিত হবে বলে জানানো হয়েছিল।

শনিবার বুয়েটের তড়িৎ ও ইলেক্ট্রনিক কৌশল অনুষদের ডিন এবং ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. প্রাণ কানাই সাহা স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ওইদিন সকাল ৯টায় পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। যানজট এড়াতে সব পরীক্ষার্থীকে সকাল ৮টার মধ্যে পরীক্ষা কেন্দ্রে উপস্থিত থাকার জন্য উপদেশ দেয়া হল।

আজ ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে বলে বেশ খুশি হয়েছেন অভিভাবকরা। বুয়েটের ২ নম্বর গেটে অপেক্ষরত অনেক অভিভাবক তাদের সন্তানদের নিয়ে ঢাকার বাইরে থেকে এসেছেন বলে জানান।

এই উদ্দেশ্যেই গত কয়েকদিন ধরে ঢাকায় অবস্থান করছেন বলে জানান তাদের অনেকে।

এ বিষয়ে বরিশাল থেকে আসা কয়েকজন অভিভাবক বলেন, ‘আবরার হত্যার প্রতিবাদে নানা দাবিতে ভর্তি পরীক্ষা হবে না বলে যখন কথা চলছিল তখন আতঙ্কিত ছিলাম। আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে বুয়েট প্রশাসনের দ্রুত সিদ্ধান্তে নির্ধারিত দিনেই ভর্তি পরীক্ষা শুরু হচ্ছে। আমরা দুশ্চিন্তামুক্ত ও নির্ভার হয়েছি। সরকার ও বুয়েট প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানাই।’

উল্লেখ্য, বুয়েটে ভর্তির আবেদন শুরু হয় গত ৩১ আগস্ট। আবেদন ও ভর্তি ফি প্রদানের শেষ দিন ছিল ৯ সেপ্টেম্বর। ভর্তি পরীক্ষার যোগ্য প্রার্থীদের নামের তালিকা প্রকাশ করা হয় ১৮ সেপ্টেম্বর এবং আজ (১৪ অক্টোবর) ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ভর্তি পরীক্ষার ফল আগামী ২৬ অক্টোবর প্রকাশ করা হবে।

বুয়েটে রাসায়িনিক প্রকৌশল বিভাগে ৬০, ধাতব প্রকৌশলে ৫০, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ১৯৫, পানি সম্পদ প্রকৌশলে ৩০, মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ১৮০, নৌ স্থাপত্য ও সামুদ্রিক প্রকৌশলে ৫৫, শিল্প ও উৎপাদন প্রকৌশলে ৩০, বৈদ্যুতিক ও ইলেকট্রনিক প্রকৌশলে ১৯৫, কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশলে ১২০, বায়োমেডিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ৩০, স্থাপত্য বিভাগে ৫৫ এবং নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগে ৩০টি আসন রয়েছে।

আবেদনকারীদের মধ্য থেকে প্রথম ১২ হাজার জনকে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ দেয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত ভারতের সঙ্গে সম্পাদিত চুক্তি নিয়ে গত ৫ অক্টোবর ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়ার জেরে ৬ অক্টোবর রাতে শেরেবাংলা হলের নিজের কক্ষ থেকে ডেকে নিয়ে পিটিয়ে হত্যা করা হয় বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে।

এ ঘটনায় আবরার হত্যার বিচার দাবিতে আন্দোলনে নামে বুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থীরা। টানা আন্দোলন চলা অবস্থায় শনিবার শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বৈঠকে বসে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। সেখানে শিক্ষার্থীদের ১০ দফা দাবি মেনে নেয়ার আশ্বাসের পর শনিবার দুপুরে ভর্তিচ্ছুদের কথা বিবেচনা করে আগামী ১৩-১৪ অক্টোবর আন্দোলন শিথিল করে বুয়েটের শিক্ষার্থীরা। ফলে সোমবার বুয়েটে ভর্তি পরীক্ষা যথারীতি অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।