মঙ্গলবার, ১৯শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং

প্লট বরাদ্দে দুর্নীতি: আব্বাসের মামলার কার্যক্রম চার সপ্তাহ স্থগিত

মুক্তখবর :
অক্টোবর ২১, ২০১৯
news-image

ঢাকা, সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯ (স্টাফ রিপোর্টার) : সাংবাদিকদের প্লট বরাদ্দ নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা মামলার কার্যক্রম চার সপ্তাহের জন্য স্থগিত করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। সোমবার (২১ অক্টোবর) প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে তিন সদস্যের আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দিয়েছেন। পরে দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান বলেন, মির্জা আব্বাসের এক আবেদনের শুনানি নিয়ে আজ আদালত এ আদেশ দিয়েছেন। মির্জা আব্বাসের আবেদনের পক্ষে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন ও আইনজীবী সগীর হোসেন লিয়ন। অন্যদিকে দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান। খুরশীদ আলম খান জানান, মামলা বাতিলে মির্জা আব্বাসের আবেদন খারিজ করেছিলেন হাইকোর্ট। ওই রায় স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগে তিনি আবেদন করেন। সোমবার সেই আবেদনের শুনানি নিয়ে আপিল বিভাগ চার সপ্তাহের জন্য স্থগিত করেছেন। মির্জা আব্বাসের বিরুদ্ধে প্লট বরাদ্দ নিয়ে দুর্নীতির মামলা বাতিলে জারি করা রুল গত ১৩ মে খারিজ করে দেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে মামলার কার্যক্রমের ওপর থাকা স্থগিতাদেশও প্রত্যাহার করেন আদালত। পরে হাইকোর্টের রায় স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগে আবেদন করেন মির্জা আব্বাসের আইনজীবী। গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী থাকা অবস্থায় সাংবাদিকদের প্লট বরাদ্দে ১৫ কোটি ৫২ লাখ ৫০ হাজার ৯শ’ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনে ২০১৪ সালে শাহবাগ থানায় এ মামলা করে দুদক (দুর্নীতি দমন কমিশন)। পরে দুদকের উপ-পরিচালক হামিদুল হাসান তদন্ত শেষ করে মির্জা আব্বাসসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে ২০১৫ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। মামলায় ২০১৭ সালের ২০ অক্টোবর মির্জা আব্বাসের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৪। ২০১৬ সালের ৮ ডিসেম্বর মামলাটি বাতিলের জন্য মির্জা আব্বাস ফৌজদারি রিভিশন মামলা দায়ের করলে, একই বছরের ১৪ ডিসেম্বর মামলাটি কেন বাতিল করা হবে না, সেই মর্মে রুল ও তিন মাসের স্থগিত করে আদেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট।