মঙ্গলবার, ১৯শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং

মেসি ও আত্মঘাতী গোলে বার্সার জয়

মুক্তখবর :
অক্টোবর ২৪, ২০১৯
news-image

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৯ (স্পোর্টস ডেস্ক) : ম্যাচের শুরুতেই লিওনেল মেসির গোলে বড় ব্যবধানে জয়ের আভাস দিয়েছিল বার্সেলোনা। বাকি সময়ে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে কাতালান ক্লাবটিকে কোনঠাসা করে রাখে স্লাভিয়া প্রাহা। তবে দ্বিতীয়ার্ধে আত্মঘাতি গোলের কল্যাণে চ্যাম্পিয়নস লিগের ম্যাচে জয় নিয়ে ফিরেছে আর্নেস্তো ভালভার্দের শিষ্যরা।

চ্যাম্পিয়নস লিগে গ্রুপ ‘এফ’ এর ম্যাচে সিনোবো স্টেডিয়ামে বার্সাকে স্বাগত জানায় স্লাভিয়া। প্রতিপক্ষের মাঠে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই শেষে ২-১ ব্যবধানে জয় পেয়েছে কাতালান ক্লাবটি।

দলের জয়ে গোল করে চ্যাম্পিয়নস লিগে নতুন ইতিহাস গড়েছেন মেসি। ম্যাচের তৃতীয় মিনিটেই গতকাল গোল পেয়েছেন আর্জেন্টিনা অধিনায়ক। চলতি মৌসুমে এটা তার প্রথম গোল। এর মধ্য দিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগ ইতিহাসে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে টানা ১৫ মৌসুমে গোলের দেখা পেয়েছেন তিনি। সেই সঙ্গে প্রতিযোগিতাটির ইতিহাসে সর্বাধিক ৩৩টি দলের বিপক্ষে গোল করার রেকর্ডের মালিক ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ও রাউল গনসালেসের পাশে বসলেন আর্জেন্টাইন তারকা।

বল মাঠে গড়ানোর তৃতীয় মিনিটে একজনকে ফাঁকি দিয়ে আর্থারকে বল বাড়িয়ে মেসি চোখের পলকে ঢুকে পড়েন ডি-বক্সে। ফিরতি বল পেয়ে প্রথম ছোঁয়ায় বাঁ পায়ের কোনাকুনি শটে ঠিকানা খুঁজে নেন বার্সেলোনা অধিনায়ক। এরপর ম্যাচের প্রথমার্ধে বেশ কিছু গোলের সুযোগ তৈরি করলেও জালের দেখা পায়নি তারা। এ সময় স্বাগতিকরাও বেশ কিছু সুযোগ তৈরি করেছিল।

ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে আরও দুর্দান্ত দেখা গেছে স্লাভিয়াকে। ফলে গোছানো আক্রমণে ৫৫তম মিনিটে সমতায় ফেরে স্বাগতিকরা। ডি-বক্সে জেরার্ড পিকে ও জর্দি আলবার মধ্যে দিয়ে ডান পায়ের শটে গোলটি করেন চেক রিপাবলিকের ডিফেন্ডার ইয়ান বোরিল।

তবে ঘরের মাঠের দর্শকদের সেই আনন্দ বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। আত্মঘাতী গোলেই পিছিয়ে পড়ে স্লাভিয়া। ম্যাচের ৫৭তম মিনিটে মেসির ফ্রি কিক থেকে সুয়ারেজের আলতো করে নেওয়া শট ওলাইয়াঙ্কার বুকে লেগে জালে জড়ায়। ম্যাচের বাকি সময়ে আর কেউ গোলের দেখা না পেলে ২-১ ব্যবধানে জয় নিয়ে বার্সেলোনা।

‘এফ’ গ্রুপে তিন ম্যাচে দুই জয় ও এক ড্রয়ে ৭ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে বার্সেলোনা। আরেক ম্যাচে ঘরের মাঠে বরুসিয়া ডর্টমুন্ডকে ২-০ গোলে হারিয়েছে ইন্টার মিলান। দুই দলের পয়েন্ট সমান ৪ করে হলেও দ্বিতীয় স্থানে আছে ডর্টমুন্ড।