শুক্রবার,১০ই জুলাই, ২০২০ ইং

চুয়াডাঙ্গায় সড়কে প্রাণ গেল অন্তঃসত্ত্বা নারীসহ দুই জনের

মুক্তখবর :
জুন ৪, ২০২০
news-image

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৪ জুন ২০২০ (নিজস্ব প্রতিনিধি): চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদায় মোটরসাইকেল ও আলমসাধুর মুখোমুখি সংঘর্ষে তিন মাসের এক অন্তঃসত্ত্বা নারীসহ দুই নারী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন মোটরসাইকেল চালক। তারা সবাই একই পরিবারের সদস্য বলে জানিয়েছে পুলিশ। বুধবার রাতে উপজেলার কোষাঘাটা নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- দামুড়হুদা উপজেলার হাতিভাঙ্গা গ্রামের আবুল কালামের স্ত্রী রুমানা খাতুন (২২) ও জিনারুল আলীর স্ত্রী তানিয়া খাতুন (৩৫)। নিহত রুমানা খাতুন ৩ মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক। এ ঘটনায় আহত হয়েছে নিহত রুমানা খাতুনের ভাই মনিরুল ইসলাম (৩২)। আহত মনিরুল ইসলাম একই গ্রামের মৃত জামাত ইসলামের ছেলে। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে। নিহতদের মরদেহ চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, গতকাল সন্ধ্যায় অন্তঃসত্ত্বা রুমানা খাতুনকে শারীরিক পরীক্ষা করানোর জন্য নিয়ে আসা হয় চুয়াডাঙ্গার ডা. জিন্নাতুল আরার কাছে। সাথে আসেন একই পরিবারের মনিরুল ইসলাম ও তানিয়া খাতুন। সেখান থেকে মোটরসাইকেল যোগে বাড়ি ফেরার পথে রাত ৯টার দিকে চুয়াডাঙ্গা-দামুড়হুদা সড়কের কোষাঘাটা নামকস্থানে পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ধান বোঝাই আলমসাধুর সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে পিচ রাস্তায় আছড়ে পড়ে গুরুতর আহত হন তারা। স্থানীয় লোকজন তাদেরকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিলে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক তানিয়া খাতুনকে মৃত ঘোষণা করেন। আহত মোটরসাইকেল চালক মনিরুল ইসলাম ও রুমানা খাতুনকে হাসপাতালে ভর্তি রাখা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ১০টার দিকে মারা যান রুমানা খাতুন। অবস্থার অবনতি হলে আহত মনিরুল ইসলামকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। দামুড়হুদা মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মামুনুর রশিদ জানান, নিহত ও আহত সবাই একই পরিবারের সদস্য। দামুড়হুদার কোষাঘাটা বটতলা এলাকায় একটি ট্রাক বিকল অবস্থায় দাঁড়িয়ে ছিল। ধারণা করা হচ্ছে, দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকটির কারণে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে।