সোমবার,১০ই আগস্ট, ২০২০ ইং

ফ্রন্টলাইন কর্মীদের ৫০ কোটি ডলার বোনাস দেবে অ্যামাজন

মুক্তখবর :
জুলাই ১, ২০২০
news-image

ঢাকা, বুধবার, ০১ জুলাই ২০২০ (আইটি ডেস্ক): করোনাভাইরাসের কারণে লকডাউনে গৃহবন্দি অসংখ্য মানুষের ঘরে ঘরে প্রয়োজনীয় সামগ্রী পৌঁছে দিয়েছেন তারা। সম্মুখভাগের সেই কর্মীদের এবার পুরস্কৃত করতে চলেছে বিশ্বের শীর্ষ ই-কমার্স সংস্থা অ্যামাজন। এককালীন বোনাস হিসেবে তাদের জন্য ৫০ কোটি মার্কিন ডলার খরচ করার কথা ঘোষণা করেছে সংস্থাটি। খবর এই সময়ের। কোম্পানির পক্ষ থেকে একটি ব্লগ পোস্ট করে বলা হয়েছে, সংস্থার ফ্রন্টলাইন অপারেশন টিমগুলো গত কয়েক মাস ধরে অবিশ্বাস্য ভালো কাজ করায় এককালীন বোনাস দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে অ্যামাজন কর্তৃপক্ষ। পরিকল্পনা অনুযায়ী মোট ৫০ কোটি ডলার দেয়া হবে।

অ্যামাজনের ডব্লিউডব্লিউ অপারেশন্সের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট ডেভ ক্লার্ক বলেন, সংস্থার সম্মুখভাগের পরিচালনা কর্মীরা বিগত কয়েক মাস ধরে ভালো কাজ করেছেন। তাই এককালীন ‘থ্যাংক ইউ বোনাস’-এর মাধ্যমে আমরা তাদের পুরস্কৃত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তিনি বলেন, জুন মাসজুড়ে অ্যামাজনের যে কর্মীরা কাজ করেছেন, তারা প্রত্যেকেই এই বোনাস পাবেন। ১৫০ ডলার থেকে ৩ হাজার ডলার পর্যন্ত বোনাস দেয়া হবে। কাজের ধরন অনুযায়ী কর্মীরা আলাদা আলাদা বোনাস পাবেন। অ্যামাজনের ফুল-টাইম কর্মী, কোম্পানি পরিচালিত খাদ্যপণ্য বিপণন কেন্দ্রের কর্মী এবং সহযোগী পরিসেবা কোম্পানির পণ্যবাহী গাড়িচালকরা মাথাপিছু ৫০০ মার্কিন ডলার বোনাস পাবেন।

পার্টটাইম কর্মী এবং চালকেরা পাবেন ২৫০ ডলার। অ্যামাজন হোল ফুডসের নেতৃস্থানীয় সম্মুখভাগের কর্মীরা পাবেন ১০০ ডলার করে। একই পরিমাণের অর্থ ব্যবসা সহযোগী অংশীদারদের কর্মীদেরও দেবে অ্যামাজন। তবে ভোক্তাদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে পণ্যের প্যাকেজ পৌঁছে দেয়া স্থায়ী কর্মীরা পাবে সবচেয়ে বেশি ৩০০০ ডলার। অ্যামাজন ফ্লেক্সের জন্য যারা জুনে ১০ ঘণ্টার বেশি সময় ধরে কাজ করেছে, তারা পাবে ১৫০ ডলার।

শুধু যুক্তরাষ্ট্রেই অ্যামাজনের চার লাখ কর্মী রয়েছে। আছে ১১০টি ফুলফিলমেন্ট সেন্টার। করোনা মহামারির মধ্যে ব্যবসা বেড়েছে এমন মুষ্টিমেয় কিছু কোম্পানির মধ্যে শীর্ষে আছে অ্যামাজন। তবে কর্মীদের স্বাস্থ্যসুরক্ষা নিয়ে অ্যামাজনের উদাসীনতায় সম্প্রতি সমালোচনাও বেড়েছে। জুনের শুরুতে অবশ্য অ্যামাজন তার কর্মীদের মধ্যে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে একটি আর্টিফিসিয়াল ইন্টিলিজেন্স চালু করেছে।