বৃহস্পতিবার,৬ই আগস্ট, ২০২০ ইং

ভারতের উপর চাপ বাড়াতে পাকিস্তান সীমান্তকেও ব্যবহার করছে চীন

মুক্তখবর :
জুলাই ২, ২০২০
news-image

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০২ জুলাই ২০২০ (নিজস্ব প্রতিনিধি): ভারতের উপরে চাপ বাড়াতে এবার পাকিস্তান সীমান্তকেও পুরোদমে ব্যবহার করা শুরু করলো চীন। ভারতীয় কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সূত্রে জানা গিয়েছে, পাক অধিকৃত কাশ্মীরের এয়ার স্ট্রিপগুলিতে নিয়মিত ওঠানামা করতে দেখা যাচ্ছে চীনা বিমান। চীনা অফিসারেরা সম্প্রতি পাক সেনা এবং আইএসআই-এর সঙ্গে যোগাযোগ বাড়িয়েছেন। গোয়েন্দাদের অনুমান, নিয়ন্ত্রণরেখার (এলওসি) কাছে পাক অধিকৃত কাশ্মীর ও গিলগিট বালটিস্তানে যে অতিরিক্ত বিশ হাজার সেনা মোতায়েন করেছে ইসলামাবাদ, তাও আসলে চীনের নির্দেশে। বালাকোট কাণ্ডের পরেও এত সেনা পাক সীমান্তে দেখা যায়নি।  সূত্রের খবর, পাকিস্তানের সন্ত্রাসবাদী সংগঠন ‘আল বাদর’-এর নেতাদের সঙ্গে চীনা কর্মকর্তারা কথা চালিয়ে যাচ্ছেন। উদ্দেশ্য একটাই সীমান্তে চীন-পাকিস্তান যৌথ উদ্যোগে ভারতকে চাপে রাখা। কূটনৈতিক শিবিরের মতে, ভারতকে মাথা নত করানোর জন্য যে বৃহৎ কৌশল রয়েছে চীনের, পাকিস্তান তার একটি অংশ। গোটা অঞ্চলে চীনের একাধিপত্য মেনে নেওয়া, প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা (এলএসি) নিয়ে নিজেদের সুবিধাজনক শর্ত ভারতকে মানতে বাধ্য করা, চীন-বিরোধী মার্কিন অক্ষ থেকে ভারতকে দূরে রাখা-সবই রয়েছে শি জিন পিংয়ের পরিকল্পনায়। প্রশ্ন উঠছে, ভারতের উপর সামরিক চাপ বাড়ানোর ক্ষেত্রে যুক্ত না-হয়েও কীভাবে চীনকে সাহায্য করতে পারে পাকিস্তান? বিশেষজ্ঞদের মতে, প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় কোনও না কোনও ভাবে ভারতীয় সেনাকে ব্যস্ত রাখাটা পাকিস্তান এবং চীনের উদ্দেশ্য। পূর্ব লাদাখে চীনের সঙ্গে সমন্বয় রেখেই এই কাজ করবে পাক সেনা। ফলে ওই সীমান্ত থেকে সেনা কিছুটা হালকা করে অন্যত্র অনুপ্রবেশ রুখার জন্য ব্যবহার করা সমস্যা হয়ে দাঁড়াবে ভারতের পক্ষে। কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সূত্রের খবর, আল বাদর-এর ক্যাডারদের সঙ্গে চীনা কর্মকর্তাদের বৈঠক করার প্রমাণও মিলেছে। গোয়েন্দাদের অনুমান, কিছুটা ঝিমিয়ে পড়া এই সংগঠনটিকে চাঙ্গা করতে চীন সাহায্য করছে। সূত্র: আনন্দবাজার।