রবিবার,৯ই আগস্ট, ২০২০ ইং

‘আগুন পাখি’আসছেন নিয়ে শম্পা রেজা

মুক্তখবর :
জুলাই ৫, ২০২০
news-image

ঢাকা, রোববার, ০৫ জুলাই ২০২০ (বিনোদন রিপোর্টার): শম্পা রেজা গায়িকা, অভিনেত্রী, আবৃত্তিকার ও মডেল। সব ক্ষেত্রেই শম্পা রেজার স্বাতন্ত্র্য সেখানে স্পষ্ট। তার কথা বলার ভঙ্গি, পোশাক-আশাক কিংবা উপস্থাপন সবকিছুই অন্যদের থেকে আলাদা। বেশির ভাগ মানুষ এখন করোনার কারণে ঘরে থাকতে থাকতে ক্লান্ত, কিন্তু শম্পা বললেন, ‘আমার তো নতুন কিছুই মনে হচ্ছে না। আমি বরাবরই ঘরকুনো। কাজ ছাড়া খুব একটা বাইরে বেরোনো হয় না। সামাজিক অনুষ্ঠানেও খুব একটা যাই না। করোনাকালেও তেমন। ঘরেই আছি। তবে নানা কিছু নিয়ে ব্যস্ত থাকি। নাতনি স্মরণীয়ার সঙ্গেই বেশির ভাগ সময় কাটে। কাজ করতে খুব ভালো লাগে। করোনায় নতুন একটা জিনিস শিখেছি। কেউ যদি অভিনয়, গান কিংবা সাংস্কৃতিক অঙ্গনের কোনো কাজ না দেয়, তাহলে এখন থেকে ফার্নিচার রং করেই দিব্যি জীবিকা নির্বাহ করতে পারব।’

শম্পা রেজার অনেক পরিচয়, কিন্তু তিনি বরাবরই নিজেকে সংগীতের মানুষ ভাবতে ভালোবাসেন। শান্তিনিকেতন থেকে সংগীত বিষয়ে পড়াশোনা করেছেন। তবে মধ্যে অভিনয়ে তাকে বেশি পাওয়া গেলেও গানে সেভাবে নিয়মিত নন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘নতুন গান করেছি ২০ বছর আগে। তবে গানের চর্চা আছে নিয়মিত। নিজের জন্যই গাই আমি। আর কোনো কিছু পরিকল্পনা করে করি না। নতুন গান করেছি। তৈরি আছে বেশ কিছু গান। দেখা যাক, সবকিছু ঠিক থাকলে প্রকাশ হবে গানগুলো।’

নতুন ধারাবাহিকে যুক্ত হয়েছেন তিনি। লকডাউনের আগে ‘আগুন পাখি’ নামের সেই ধারাবাহিকের শ্যুটিং করেছেন। শম্পা রেজা বলেন, ‘ধারাবাহিক করতে খুব ভালো লাগছে। দীপ্ত টিভিতে প্রচার হবে। সব স্বাভাবিক থাকলে এত দিনে মানুষ দেখতে পেত কাজটি। পারভেজ আমিন পরিচালনা করছেন নাটকটি। আমি এখানে হিন্দু জমিদার বাড়ির ৮০ বছর বয়স্ক একটি চরিত্র করছি। চরিত্রটি খুব ইন্টারেস্টিং।’ অভিনয় প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, ‘আমার অভিনয় শুরু আবদুল্লাহ আল মামুন, আতিকুল হক চৌধুরী, মোস্তফা কামাল সৈয়দদের হাত ধরে। গানের লোভ দেখিয়ে অভিনয়ে নিয়ে আসেন। বলতেন, নাটকে গানও করবি, অভিনয়ও করবি। তাদের কাজের মান সম্পর্কে সবাই জানেন। সেই ধরনের কাজ করার পর এখন এসে ভালো কাজ ছাড়া কি মন ভরে? তাই আমি খুব বেশি অভিনয় করি না। যে কাজের সঙ্গেই যুক্ত হই না কেন, সেটি ভালো হতে হবে। এটা এখন সবাই জেনে গেছে। তাই আমার কাছে ইন্টারেস্টিং চরিত্র ছাড়া আসেও না আজকাল।’

করোনা পরিস্থিতিতে চিন্তা জগতে কী খেলা করে? জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমার মনে হয়, সবকিছুর মধ্যে তাল, লয়, ছন্দ আছে। সূর্য ঠিক সময়ে ওঠে আবার ঠিক সময়ে ঘুমাতে যায়, চাঁদ, প্রকৃতি, জীব-জন্তু, পোকামাকড় সবারই এতটা ছন্দ আছে। কিন্তু মানুষের বোধ হয় ছন্দপতন হয়েছিল। এজন্য পৃথিবী তার সঠিক ছন্দে চললেও আমরা খেই হারিয়ে ফেলেছি। একটু খেয়াল করলেই বোঝা যাবে, আমরা কিছুদিন আগেও কেমন অস্থির হয়ে কীসের পেছনে ছুটছিলাম। এখন সেই ছোটাছুটি একটু কমেছে। এভাবেই যুগে যুগে একটা সভ্যতা বিনাশ হয়ে নতুন সভ্যতা তৈরি হয়েছে।’

সম্প্রতি নেটফ্লিক্সের সিনেমা ‘বুলবুল’-এ ব্যবহৃত জনপ্রিয় ফোকগানে হিন্দুদের দেবতা কৃষ্ণকে কানু হারামজাদা আর রাধাকে ‘কলঙ্কিনী রাধা’ বলায় ভারতের উগ্র হিন্দুবাদীদের রোষানলে পড়েছে অনলাইন প্ল্যাটফর্মটি। এ বিষয়ে শম্পা রেজার মত একেবারেই ভিন্ন। তিনি বলেন, ‘আসলে এ কাজের সঙ্গে মানুষের মানসিক গভীরতা খুব একটা নেই। এটা এক দল মানুষকে ব্রেইন ওয়াশ করার ফল। পৃথিবীতে সবচেয়ে বড় ব্যবসা হলো অস্ত্রের ব্যবসা। এই সম্প্রদায় চায় সব সময় ঝামেলা লেগে থাকুক, যাতে তাদের অস্ত্র বিক্রি হয়। আমি এসব কাজে এর বেশি কোনো যুক্তি খুঁজে পাই না।