রবিবার,৯ই আগস্ট, ২০২০ ইং

বান্দরবানে ছয় হত্যা: ১০ জনের বিরুদ্ধে মামলা

মুক্তখবর :
জুলাই ৯, ২০২০
news-image

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৯ জুলাই ২০২০ (নিজস্ব প্রতিনিধি): বান্দরবান সদর উপজেলার বাঘমারায় মঙ্গলবার সকালে জনসংহতি সমিতির সংস্কারপন্থি অংশের নেতা রতন সেন তঞ্চঙ্গ্যার বাড়িতে সশস্ত্র হামলার পর সেখানে যান সেনা সদস্যরা। বান্দরবান সদর উপজেলার বাঘমারায় মঙ্গলবার সকালে জনসংহতি সমিতির সংস্কারপন্থি অংশের নেতা রতন সেন তঞ্চঙ্গ্যার বাড়িতে সশস্ত্র হামলার পর সেখানে যান সেনা সদস্যরা। বান্দরবানে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি সংস্কারপন্থীর ছয় নেতাকর্মীকে হত্যার ঘটনায় সন্তু লারমা নেতৃত্বাধীন জেএসএএসের ১০ নেতাকমীর বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।এছাড়া এ মামলায় অজ্ঞাতপরিচয় আরও ১০ জনকে আসামি করা হয়েছে বলে বান্দরবান থানার ওসি শহিদুল ইসলাম চৌধুরী জানিয়েছেন। তিনি বলেন, সমিতির সংস্কারপন্থী অংশের বান্দরবান জেলার সাধারণ সম্পাদক উবামং মারমা বুধবার রাতে এই মামলা করেন। তিনি ১০ আসামির নাম উল্লেখ করেছেনে। এছাড়া অজ্ঞাতনামা আট থেকে ১০ জনকে আসামি করা হয়েছে। মঙ্গলবার সদর উপজেলার বাঘমারা বাজারপাড়া এলাকায় জেএসএস সংস্কারপন্থী অংশের বান্দরবান জেলা শাখার সভাপতি রতন সেন তঞ্চঙ্গ্যার বাড়িতে গুলিতে ঘটনাস্থলে তাদের ছয় নেতাকর্মী নিহত হন। এছাড়া গুলিতে আহত হন আরও তিনজন। এ ঘটনায় মামলায় যে ১০ আসামির নাম উল্লেখ করা হয়েছে তারা হলেন আপাই মারমা (৩৮), অংপ্রু মারমা (৪৫), বিনয় লাল চাকমা (৪৫), নিরেক্ত চাকমা (৫০), মংপ্রু মারমা (৪৮), শান্তি বিকাশ চাকমা (৩৮), জরিপ কুমার তঞ্চঙ্গ্যা (৫০), মংশৈসা মারমা (৪০), উসাইনু মারমা (৩৮) ও সুমন চাকমার (৩৫)। তারা সবাই সদর উপজেলার রাজবিলা ও কুহালং ইউনিয়নে বিভিন্ন পাড়ার বাসিন্দা বলে জানান ওসি শহিদুল। মামলার বাদী উবামং মারমা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “আসামিরা নিজ নিজ এলাকার স্থানীয় পর্যায়ের নেতাকর্মী।”