বৃহস্পতিবার,১৩ই আগস্ট, ২০২০ ইং

পদ্মায় বিলীন আরও এক স্কুল

মুক্তখবর :
জুলাই ২৯, ২০২০
news-image

ঢাকা, বুধবার, ২৯ জুলাই ২০২০ (নিজস্ব প্রতিনিধি): পদ্মা নদী ও আড়িয়াল খাঁ নদে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় গত ২০ দিন ধরেই তীব্র স্রোত অব্যাহত রয়েছে। এতে মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় নদী ভাঙন ব্যাপক আকার ধারণ করেছে। আর পদ্মার ভাঙনে চরাঞ্চল কাঁঠালবাড়ি ইউনিয়নের একটি ৩ তলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কাম সাইক্লোন সেন্টার ভবন নদীতে বিলীন হয়েছে। মঙ্গলবার (২৮ জুলাই) সন্ধ্যার দিকে বিদ্যালয়টি নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যায়। ভারপ্রাপ্ত উপজেলা চেয়ারম্যান বিএম আতাউর রহমান, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. রফিকুল ইসলামসহ শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটির সদস্যরা নদীতে বিলীন হওয়া বিদ্যালয়ের এলাকাটি পরিদর্শন করেছেন। এছাড়াও ভয়াবহ ভাঙন ঝুঁকিতে রয়েছে বন্দরখোলা কাজিরসুরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন, বন্দরখোলা ইউনিয়ন পরিষদ ভবন, কমিউনিটি ক্লিনিক ভবন, কাজির সুরা সরকার প্রাথমিক বিদ্যালয়, বাজারসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা। পদ্মা নদীতে অস্বাভাবিক পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় চরাঞ্চলে নদী ভাঙনের ব্যাপকতা বেড়েই চলছে। ভাঙন প্রতিরোধে চরাঞ্চলে জিও ব্যাগ ডাম্পিং চালিয়ে যাচ্ছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। ৭৭ নম্বর কাঁঠালবাড়ি সরকারি বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি জুলহাস বেপারী জানান, বিদ্যালয়টিতে ২৭২ জন শিক্ষার্থী রয়েছে। মাত্র কয়েকদিন আগে পদ্মার ভয়াবহ ভাঙনে বন্দরখোলা ইউনিয়নের নুরুদ্দিন মাদবরকান্দি এসইএসডিপি মডেল উচ্চ বিদ্যালয় ভবনটি নদীগর্ভে যায়। এছাড়া আড়িয়াল খা তীরবর্তী সন্ন্যাসিরচর, শিরুয়াইল, নিলখী ও বহেরাতলা দক্ষিণেও নদীভাঙন দেখা দিয়ে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। এ সকল এলাকায় খোলা ২১টি আশ্রয়কেন্দ্রে প্রায় ৩ হাজার মানুষ আশ্রয় নিয়েছে। গত কয়েকদিন ধরে বিদ্যালয়টি ভাঙন ঝুঁকিতে থাকায় চিফ হুইপ নূর-ই আলম চৌধুরীর নির্দেশনায় গত শুক্রবার বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদ ও শিক্ষকদের উপস্থিতিতে জিও ব্যাগ ডাম্পিং করা হয়। কিন্তু তীব্র স্রোতের কারণে বিদ্যালয়টি নদীতে বিলীন হয়ে যায়।

সূত্র: আরটিভি