সোমবার,১০ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

মঠবাড়িয়ায় ব্যাবসায়ীকে অপহরণ করে মুক্তিপন দাবির ঘটনায় মামলা, গ্রেফতার-১

মুক্তখবর :
জানুয়ারি ৪, ২০২০
news-image

মঠবাড়িয়ায় প্রতিনিধি : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় পাওনা টাকার জন্য খলিল আকন (৩২) নামে এক ডিম বিক্রেতাকে মুরগীর ফার্মের কর্মচারী তার বসত ঘরে পাঁচ দিন ধরে আটক করে অমানুষিক নির্যাতন করে। পরে তার পরিবারের কাছে মোবাইলে ৫ লাখ টাকা মুক্তিপন দাবী করে। থানা পুলিশ এমন অভিযোগ পেয়ে শুক্রবার উপজেলার আন্ধারমানিক গ্রামের একটি পরিত্যাক্ত ইটভাটা সংলগ্ন মুরগী ফার্মের কর্মচারী জসিম গাজীর বসত ঘরের দোতালা থেকে মারাত্মক আহত অবস্থায় খলিলকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নেয়। এ সময় ফার্মের কর্মচারী জসিম গাঁজী (২৫) কেও পুলিশ আটক করে। আহত খলিল পাশ^বর্তী পাথরঘাটা উপজেলার হারিটানা গ্রামের মৃত ছত্তার আকনের পুত্র।
থানা ও খলিলের পারিবারিক সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার আন্ধারমানিক গ্রামের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ জালাল উদ্দিন আহম্মেদের মালিকাধীন মুরগীর ফার্মের কর্মচারী জসীম গাজীর কাছ থেকে সম্প্রতি প্রতিবেশী ভাড়াটিয়া ডিম বিক্রেতা ও ভ্যান চালক খলিল ১লাখ ৪৮হাজার টাকা নিয়ে গাঁ ঢাকা দেয়। এরপর খলিলের কোন খোঁজ না পাওয়ায় অভিনব কায়দায় খলিলের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করে গত সোমবার দুপুরে জসীমের নেতৃত্বে ৩/৪ জনের একটি দল খলিল কে ভান্ডারিয়া শহর হতে অপহরণ করে মঠবাড়িয়ায় নিয়ে এসে আন্ধারমানিক ওই বসত ঘরে আটকিয়ে রেখে পাঁচদিনে নির্যাতন করে। খলিলের ভাই হাবিব জানান, আমার ভাইকে নির্যাতনের শব্দ মোবাইলে আমাদেরকে শুনিয়ে ৫ লাখ টাকা দাবি করে জসিম ও তার স্ত্রী। ওই টাকা না দিলে তারা খলিলকে হত্যারও হুমকি দেয় যা মোবাইল রেকর্ডিং রয়েছে। পুলিশের কাছে আটক জসীম মুক্তিপনের কথা অস্বীকার করে বলেন, আমি খলিলের কাছে ২টি ভ্যান ও ৩টি রিক্সা বিক্রি করাসহ ১লাখ ৪৮ হাজার টাকা পাই। মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মাসুদুজ্জামান মিলু জানান, এ ঘটনায় অপহৃত খলিলের ভাই হাবিবুর রহমান বাদী হয়ে শুক্রবার রাতে মঠবাড়িয়া থানায় একটি মামলা করেছেন। আটক জসিমকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।