মঙ্গলবার,২৪শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

করোনামুক্তিতে ভেষজ!

মুক্তখবর :
মে ১৬, ২০২০
news-image

ঢাকা, শনিবার, ১৬ মে ২০২০ (স্বাস্থ্য ডেস্ক): করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন উদ্ভাবনের আশায় দিনরাত কাজ করে চলেছেন বিজ্ঞানীরা, কিন্তু এখনো কোনো ওষুধ বা কোনো কিছুই এই ভাইরাস মোকাবেলা করার জন্য তৈরি হয়নি। এর মধ্যেই আফ্রিকার দেশ মাদাগাস্কারের প্রেসিডেন্ট অ্যান্ড্রি রাজোয়েলিনা এমন এক ভেষজ ওষুধের কথা বলেছেন, যা করোনা প্রতিরোধ ও করোনামুক্তিতে কাজ করবে বলে দাবি করেছেন।

জার্মানির ম্যাক্স প্ল্যাংক ইনস্টিটিউট অব কোলইডস অ্যান্ড ইন্টারফেসেস ইন পোটসড্যামের এক দল বিজ্ঞানী ও গবেষক ডেনমার্কের বিজ্ঞানীদের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে আর্টেমেশিয়া নামের এই ভেষজ ওষুধি গাছ থেকে করোনা ভ্যাকসিন তৈরি করা যায় কি না তার কাজ শুরু করেছেন। তাদের সহযোগিতা করছে যুক্তরাষ্ট্রের সংস্থা আর্টেমলাইফ।

গবেষণার মুখ্য বিজ্ঞানী পিটার সিবার্গার বলেছেন, ‘কভিড ১৯-এর বিরুদ্ধে লড়াই করার মতো কিছু এই ভেষজ ওষুধি গাছে রয়েছে কি না তা প্রথমবার পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে।’
আফ্রিকায় ম্যালেরিয়া সারানোর জন্য এই আর্টিমেশিয়া ব্যবহার করা হয়। এর আগে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন নামের ম্যালেরিয়ায় ওষুধও পরীক্ষা করে দেখা হয়েছে করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে কাজ করে কি না। যদিও তা কাজে আসেনি।

তবে আফ্রিকার দরিদ্র দেশ মাদাগাস্কার দাবি করেছে, তারা করোনা নিরাময়ের ভেষজ ওষুধ তৈরি করে ফেলেছে। আর্টিমেশিয়া নামের ভেষজ উদ্ভিদ থেকে এই ওষুধ তৈরি করা হয়েছে। এই ভেষজ ওষুধ খেলে ২৪ ঘণ্টায় করোনামুক্তি ঘটবে বলে দাবি করেছে দেশটির সরকারও।

যদিও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এখনো এই ওষুধ নিয়ে কোনো বৈজ্ঞানিক গবেষণা হয়নি বলেই জানিয়েছে। এমনকি এখনো কোনো বৈজ্ঞানিক প্রমাণও তারা পায়নি যা থেকে বোঝা যাবে যে আর্টিমেশিয়া কাজ করে। সে কারণেই মাদাগাস্কার সরকার করোনাভাইরাস নিরাময়ে ভেষজটি সত্যিই কাজ করে কি না সেটা যাচাই করার জন্য এক দল আন্তর্জাতিক গবেষক দ্বারা পরীক্ষা করার উদ্যোগ নিয়েছে।

সম্প্রতি করোনাভাইরাস থেকে সুস্থ হতে কভিড-অর্গানিকস নামের এই হারবাল টনিক বাজারজাত করেছে মাদাগাস্কার। এরই মধ্যে তানজানিয়ায় ওষুধটি সরবরাহ করেছে মাদাগাস্কার। সূত্র: এই সময়।