বুধবার,২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

আশুলিয়ায় কারখানা সহ হাজারো পরিবার বন্যায় পানি বন্দী

মুক্তখবর :
আগস্ট ৮, ২০২০
news-image

ওবায়দুর রহমান লিটনঃ বন্যার প্রভাবে সারা দেশের মত সাভার আশুলিয়ায়ও বন্যাকবলিত প্রায় গ্রাম। দুর্ভোগে হাজার হাজার পরিবার। কোথাও কোথাও সরকারি সহায়তা দেওয়া দেখা গেলেও আশুলিয়ার ধামসোনা ইউনিয়নের পশ্চিম বাইপাইল ও কাইচেবাড়ি এলাকায় কয়েকটি কারখানা সহ কয়েক হাজার পরিবার পানিবন্ধী হয়ে পড়েছে, আবার অনেক পরিবার তাদের বাসা বাড়ির ব্যাবহারিত মালামাল সরাতে না পেরে নির্মাণাধীন ভবনে আশ্রয় নিতে দেখা গেছে। এদিকে ঈদের ছুটি শেষ হওয়ায় আজ থেকে যোগ দিতে হবে কর্মস্থলে ঘরে পানি নাই চলাচলের ব্যাবস্থা তাদের অভিযোগ এপর্যন্ত ইউপি চেয়ারম্যান মেম্বার সহ কোনো সরকারি লোকজন সাহায্যে তো দুরের কথা কেউ খোজ খবরও নেইনি। অর্থনীতির খ্যাত শিল্পাঞ্চাল সাভারে বন্যা মেকাবেলা করে লাখ লাখ শ্রমিককে কাজ যোগ দিতে হচ্ছে। ইতিমধ্যে সাভারের বংশী ও তুরাগ নদীর পানির বিপদ সীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। তবে গত দুইদিনের তুলনায় বংশী নদীর পানি কিছুটা কমলেও বেড়েছে তুরাগ নদীর পানি। শুক্রবার (০৭ আগস্ট) বিকেলে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন সাভার-আশুলিয়া-ধামরাইয়ের (ঢাকা বিভাগ-২) পানি উন্নয়ন বোর্ডের দায়িত্বরত উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী রাহাত রশিদ। তিনি জানান, পরিস্থিতি বুঝতে প্রতিদিনই নজর রাখছেন নদীগুলোর প্রবাহিত পানির বিষয়ে। তিনি আরও জানান, আজকের (০৭ আগস্ট) প্রতিবেদন অনুযায়ী তুরাগ নদীর পানি বিপদ সীমার ৫০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। গত বুধবার (০৫ আগস্ট) ছিল ৪৬ সেন্টিমিটার। অর্থাৎ তুরাগ নদীর পানির বিপদসীমা ৫.৯৫ মিটার। বর্তমানে ৬.৪৫ মিটারে প্রবাহিত হচ্ছে। অন্যদিকে আজকের (০৭ আগস্ট) প্রতিবেদন অনুসারে বংশী নদীর পানি বিপদ সীমার ১২ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। গত বুধবার (০৫ আগস্ট) ২১ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে। ৭.৩০ সেন্টিমিটার হলো এই নদীর বিপদ সীমা। বর্তমানে ৭.৪২ মিটারে প্রবাহিত হচ্ছে।