শুক্রবার,১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

আবারো ইউরোপে বাড়ছে করোনার সংক্রমণ

মুক্তখবর :
আগস্ট ১৩, ২০২০
news-image

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ আগষ্ট ২০২০ (মুক্তখবর ডেস্ক): আবারো করোনার আতঙ্ক দানা বাঁধতে শুরু করেছে ইউরোপে। জার্মানি, স্পেন, ফ্রান্স ও বেলজিয়ামে ধীরে ধীরে বাড়ছে ভাইরাসটির সংক্রমণ। এর ফলে নতুন করে বিভিন্ন সতর্কতা ও বিধিনিষেধও জারি করতে শুরু করেছে দেশগুলো। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি আজ বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে। এর মধ্যে জার্মানিতে গতকাল এক হাজার ২০০ জনেরও বেশি মানুষের করোনা শনাক্ত হয়েছে, যা গত তিন মাসের মধ্যে সর্বাধিক। কর্তৃপক্ষ বলছে, অনেকে ছুটি কাটিয়ে ফিরে আসায় ভাইরাসটির সংক্রমণ বেড়েছে। স্পেনের কিছু এলাকায় ভ্রমণে সতর্কতা জারি করার মধ্যেই এমন চিত্র দেখল জার্মানি। জার্মানির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদ ও বাস্ক অঞ্চলে করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় গত মঙ্গলবার ওই এলাকাগুলোতে ভ্রমণে সতর্কতা জারি করা হয়েছে। এ ছাড়া আগে থেকেই অ্যারাগন, কাতালোনিয়া ও নাভারা অঞ্চলে ভ্রমণ সতর্কতা বলবৎ রয়েছে। এখন পর্যন্ত জার্মানিতে ৯ হাজারের বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। এ ছাড়া করোনা শনাক্ত করা হয়েছে দুই লাখ ২০ হাজারের বেশি মানুষের। অন্যদিকে, পশ্চিম ইউরোপের মধ্যে স্পেনে করোনা শনাক্তের হার সবচেয়ে বেশি লক্ষ্য করা গেছে। গত মঙ্গলবার দেশটিতে এক হাজার ৪১৮ জনের করোনা শনাক্ত করা হয়েছে। কাতালোনিয়ার ওপেন ইউনিভার্সিটির স্বাস্থ্যবিজ্ঞান বিশেষজ্ঞ সালভাদোর ম্যাসিপ বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেছেন, ‘দেশটি সংকটময় মুহূর্তে রয়েছে। আমরা এমন এক পর্যায়ে রয়েছি, যেকোনো সময় অবস্থা ভালো হতে পারে, আবার খারাপও হতে পারে। অর্থাৎ, অবস্থা আরো সংকটাপন্ন হওয়ার আগেই আমাদের প্রতিরোধ ব্যবস্থা নিতে হবে।’ এখন পর্যন্ত স্পেনে মোট তিন লাখ ২৬ হাজারের বেশি মানুষের করোনা শনাক্ত হয়েছে, যা পশ্চিম ইউরোপের মধ্যে সবচেয়ে বেশি। অন্যদিকে, ফ্রান্সে গতকাল বুধবার দুই হাজার ৫২৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। গত মে মাসে দেশটিতে লকডাউন তুলে নেওয়ার পর শনাক্তের সংখ্যায় এটিই সর্বোচ্চ। এদিকে, ফ্রান্সে করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় প্যারিস ম্যারাথন বাতিল করেছে কর্তৃপক্ষ। এর আগে গত ৫ এপ্রিল প্যারিস ম্যারাথন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। পরে করোনা মহামারির জন্য তা আগামী ১৫ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে বলে ঘোষণা করা হয়। আয়োজকরা বলছেন, তাঁরা প্যারিস ম্যারাথন আয়োজনের জন্য সব ধরনের চেষ্টা করেছেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ব্যর্থ হয়েছেন। আয়োজকরা আরো বলছেন, যাঁরা ম্যারাথনে অংশ নেওয়ার জন্য এতদিন ধরে কঠোর পরিশ্রম করেছেন, এটি তাঁদের জন্য বড় দুঃসংবাদ। এ ছাড়া করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে গতকাল বুধবার সব ধরনের জনসমাগমে ফেসমাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। বারো বছরের বেশি বয়সীদের ফেসমাস্ক পরতে হবে বলে জানানো হয়েছে। এ ছাড়া সাধারণ মানুষ ফেসমাস্ক পরছে কি না, এ ব্যাপারে নজরদারি করতে মাঠে নেমেছে দেশটির পুলিশ। এরই মধ্যে বেলজিয়ামে মোট ৭৫ হাজারের বেশি মানুষের করোনা শনাক্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে ৯ হাজার ৮০০ জনের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে।