সোমবার,১৮ই জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

গৃহবধূকে বিবস্ত্রের ঘটনায় আরও ২ জন গ্রেফতার

মুক্তখবর :
অক্টোবর ৭, ২০২০
news-image

ঢাকা, বুধবার, ০৭ অক্টোবর ২০২০ (নিজস্ব প্রতিনিধি): নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের পূর্ব একলাশপুরে স্বামীকে বেঁধে রেখে গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন ও ধর্ষণ চেষ্টার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার ঘটনায় সোহাগ ও রাসেল নামে আরও ২ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) রাতে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এ নিয়ে চাঞ্চল্যকর এ লোমহর্ষক ঘটনায় এক ইউপি মেম্বারসহ ৮ জনকে গ্রেফতার করা হলো।

এর মধ্যে গত ৪ অক্টোবর রাতে ৯ জনের বিরুদ্ধে বেগমগঞ্জ মডেল থানায় নির্যাতনের শিকার নারীর দায়ের করা মামলায় গ্রেফতার প্রধান আসামি বাদলকে ৭ দিনের ও ইউপি সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন সোহাগকে ২ দিনের রিমান্ড দিয়েছেন আদালত। গতকাল মঙ্গলবার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বেগমগঞ্জ থানার এসআই মোস্তাক বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘নোয়াখালী চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত বেগমগঞ্জ ৩নং আমলী আদালতের বিচারক মাসফিকুল হকের আদালতে এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।’

এদিকে, নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত দেলোয়ার বাহিনীর প্রধান দেলোয়ার হোসেন ও তার সহযোগী কালাম ওরফে আবুল কালামের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা হয়েছে। গতরাত ১২টার দিকে ভিকটিম নিজে বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯/১(৩০) ধারায় (মামলা নং-১০, তারিখ- ০৬-১০-২০২০) মামলাটি দায়ের করেন। বেগমগঞ্জ থানার ওসি হারুনুর রসিদ চৌধুরী এ ব্যাপারে গণমাধ্যমকে আইন মোতাবেক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, গত ২ সেপ্টেম্বর রাত ৯টার দিকে বেগমগঞ্জ উপজেলার এখলাশপুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের খালপাড় এলাকায় ওই গৃহবধূর বসতঘরে ঢুকে তার স্বামীকে পাশের কক্ষে বেঁধে রাখেন স্থানীয় বাদল ও তার সহযোগীরা। এ সময় ওই গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে বেধড়ক মারধর করে তার ভিডিও চিত্র ধারণ করে বিভিন্ন অংকের টাকা দাবি ও শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনের জন্য কুপ্রস্তাব দেয়।

চাহিদা অনুযায়ী টাকা না পেয়ে গত রোববার (৪ অক্টোবর) বিকেলের দিকে ঘটনার ৩২দিন পর গৃহবধূকে নির্যাতনের ঐ ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে প্রকাশ পেলে তা ভাইরাল হয়ে যায়। এতে টনক নড়ে স্থানীয় প্রশাসনের। ঘটনার পর থেকে দীর্ঘ একমাস অভিযুক্ত স্থানীয় বখাটেরা গৃহবধূর পরিবারকে অবরুদ্ধ করে রাখলে পুরো ঘটনা থেকে যায় স্থানীয় এলাকাবাসী ও পুলিশ প্রশাসনের অগোচরে। স্থানীয়রা বলছে, গত মাসের (২ সেপ্টেম্বর) উপজেলার একলাশপুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের খালপাড় এলাকার নূর ইসলাম মিয়ার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী নির্যাতিত গৃহবধূ এতোদিন বখাটেদের ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছিল।