বৃহস্পতিবার,৩রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

কুড়িগ্রামে সৎমাকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ

মুক্তখবর :
অক্টোবর ২০, ২০২০
news-image

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০ (নিজস্ব প্রতিনিধি): কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ি উপজেলায় এক সন্তানের জননী সৎমাকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে ছেলে মিজানুর রহমান (২৩) নামে একজনকে আটক করেছে পুলিশ। নির্যাতিতা নারী জানান, উপজেলার নাওডাঙ্গা ইউনিয়নের নাওডাঙ্গা গ্রামের বাসিন্দা ছোবেদ আলী(৪৭) প্রায় ১০ বছর আগে প্রথম স্ত্রীকে তালাক দিয়ে তাকে বিয়ে করেন। তার বাড়ি পার্শ্ববর্তী লালমনিরহাট জেলার মহিষখোঁচা গ্রামে। তাদের দাম্পত্য জীবনে ৬ বছরের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। এরমধ্যে সতীনের একমাত্র ছেলে মাদকাসক্ত মিজানুরের কু-নজর পড়ে তার উপর। এর আগেও কয়েকবার মিজানুর তাকে ধর্ষণের চেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হয়েছে বলে জানান তিনি। গত ১৭ অক্টোবর শনিবার রাতের খাবার শেষে স্বামী-সন্তান নিয়ে নিজ ঘরে ঘুমিয়ে পড়েন তিনি। এ সময় তার স্বামী ছোবেদ আলী গরমে বাড়ির পার্শ্ববর্তী টংয়ের অবস্থান করছিলেন। ঘরে দরজা ফাঁকা এবং বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে মাদকাসক্ত লম্পট মিজানুর ঘরে ঢুকে ঘুমন্ত অবস্থায় তাকে জাপটে ধরে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। ধস্তাধস্তি আর চিৎকারের এলাকাবাসী ও তার স্বামী এসে মিজানুরকে হাতেনাতে আটক করে। সোমবার সন্ধ্যায় নির্যাতিত নারী বাদী হয়ে ফুলবাড়ি থানায় একটি মামলা করেন। সতীনের ছেলে কর্তৃক ধর্ষণের চেষ্টার শিকার হওয়ায় ঘটনাটি এলাকায় চাঞ্চল্যর সৃষ্টি হয়েছে। নির্যাতিত নারীর স্বামী ছোবেদ আলী বলেন, স্ত্রী ও সন্তানের চিৎকার চেঁচামেচিতে ছুটে এসে দেখি মিজানুর তার সৎমাকে শ্লীলতাহানি করেছে। সে মাদক সেবন করায় মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পরেছে। স্থানীয় বাসিন্দা মকবুল হোসেন,মোফাজ্জল হোসেন ও মনিরুজ্জামান জানান,মিজানুর নিয়মিত গাঁজা সেবন করে। নেশাগ্রস্ত হয়ে প্রায় তার সৎমায়ের উপর নির্যাতন চালায়। নাওডাঙ্গা ইউপি সদস্য শাহাজামাল মিয়া বলেন, এর আগেও একবার এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছিল মিজানুর। তাই ওই নারীকে আইনের আশ্রয় নিতে বলা হয়েছে। ফুলবাড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ রাজিব কুমার রায় বলেন,এই ঘটনায় নির্যাতিত নারী সোমবার নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। রাতে অভিযুক্ত মিজানুর রহমানকে গ্রেফতার করা হয়েছে।