শুক্রবার,৭ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

যশোরে ইউপি সদস্যকে অস্ত্রসহ আটক দেখানোর অভিযোগ

মুক্তখবর :
নভেম্বর ৪, ২০২০
news-image

ঢাকা, বুধবার, ০৪ নভেম্বর ২০২০ (নিজস্ব প্রতিনিধি): গভীর রাতে যশোরের বাসা থেকে তুলে নিয়ে বেনাপোলের হাবিবুর রহমান হাবিব বিশ্বাস নামে এক ইউপি সদস্যকে অস্ত্রসহ আটক দেখানোর অভিযোগ উঠেছে। পুটখালী সীমান্তের খাটাল ব্যবসা নিয়ে বিরোধের জের ধরে নাছির উদ্দিন ষড়যন্ত্র করে তাকে ধরিয়ে দিয়েছেন বলে মঙ্গলবার বিকালে শহরের খড়কী শাহ আবদুল করিম সড়কের প্রফেসরপাড়ায় ভাড়াবাড়িতে সংবাদ সম্মেলন করে হাবিবুর রহমানের স্ত্রী ফারহানা সুলতানা রিমা এমন অভিযোগ করেন। এ সময় হাবিবের বড় ভাই সিদ্দিকুর রহমান খোকন, ভাবী চাঁদনী খাতুন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, হাবিবুর রহমান বেনাপোলের পুটখালী ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য। প্রায় সাত বছর ধরে পুটখালী গ্রামের নাসির উদ্দিনের সঙ্গে হাবিবুর রহমান খাটালের ব্যবসা করতেন। কিছু দিন আগে তাদের মধ্যে ব্যবসায়িক বিরোধ দেখা দেয়। বর্তমানে নাসির উদ্দিন একাই খাটালের ব্যবসা করেন এবং হাবিবকে বিভিন্নভাবে ক্ষতি করার চেষ্টা করেন। এরই মধ্যে নাসির উদ্দিনের সহযোগী ভুট্টা হাবিবের ভাই মফিজুর রহমান ঘেনাকে মোবাইল করে হত্যার হুমকি দেয়। সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়, নাসির উদ্দিন র্যানবের সঙ্গে আঁতাত করে। সেই অনুযায়ী গত ২৯ অক্টোবর রাত ১১টার দিকে সাদা পোশাকে সাত-আটজন হাবিবুর রহমানের খড়কী এলাকার ভাড়াবাড়িতে যান। যাদের মধ্যে দুজনের গায়ে র্যাতবের কোট ছিল। তারা কলিং বেল বাজালে হাবিবুর রহমান দরজা খুলে দেন। এ সময় তারা হাবিবুর রহমানের হাতে হ্যান্ডকাপ পরিয়ে দেন। একই সঙ্গে তাকে মারপিটও করা হয়। বিষয়টি দেখে হাবিবের মা নূরজাহান বেগম ও স্ত্রী ফারহানা সুলতানা রিমা এগিয়ে গেলে তাদের ধমক দিয়ে সরিয়ে দেয়া হয়। পরে প্যান্ট ও গেঞ্জি পরিয়ে হ্যান্ডকাপ পরিহিত অবস্থায় তাকে নিয়ে যাওয়া হয়। হাবিবুর রহমানের স্ত্রীর আরও অভিযোগ, ওই রাত ১টা ৩৫ মিনিটের দিকে হাবিবকে সঙ্গে নিয়ে র্যা ব তাদের গ্রামের বাড়ি পুটখালী যায়। সেখানে গিয়ে প্রথমে বাড়িতে থাকা ক্লোজ সার্কিট (সিসি) ক্যামেরার যন্ত্রাংশ ভেঙে ফেলে। এর পর বাড়ির গেট ও ভেতরে ভাঙচুর করা হয়। পরে বাড়ির মধ্যে নিয়ে একটি বালতিতে ৯টি পিস্তল, ১৯টি ম্যাগজিন ও ৪৯ রাউন্ড গুলি উদ্ধার দেখানো হয়। ফারহানা সুলতানা রিমার দাবি, নাসিরের সঙ্গে হাবিবের পূর্ব বিরোধের জের ধরে র্যা বকে ব্যবহার করে নাটক সাজিয়ে অস্ত্র দিয়ে হাবিবের নামে মিথ্যা মামলা দেয়া হয়েছে। অভিযোগের বিষয়ে মঙ্গলবার রাতে র্যায়ব-৬ যশোর ক্যাম্পের দাফতরিক ফোনে যোগাযোগ করা হলে জানানো হয়, র্যা ব নিশ্চিত হয়েই ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্রসহ হাবিবকে গ্রেফতার করেছে। তিনি একজন অস্ত্র ব্যবসায়ী। ঢাকার মিরপুর থানায় অস্ত্র মামলা আছে। পরিবারের অভিযোগ সঠিক নয়। গ্রেফতারের বিষয়ে র্যারবের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আগেই স্পষ্ট করা হয়েছে।