মঙ্গলবার,২৪শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

অনলাইনে দারাজের অবৈধ ক্যাসিনো বাণিজ্য

মুক্তখবর :
নভেম্বর ৯, ২০২০
news-image

চমকের ছড়াছড়ি। মাত্র ১ টাকায় ১৬ লাখ টাকার গাড়ি! এমন লোভনীয় অফারে, কার না ভাগ্যটা পরীক্ষা করে নিতে ইচ্ছা করে। আর এভাবেই প্রতারণার ফাঁদে ফেলে সবাইকে বোকা বানিয়ে কুইজ আর ক্যাম্পেইনের নামে জুয়ার আসর চালাচ্ছে অনলাইন শপ দারাজ। কোনো অনুমতি ছাড়াই চলছে এসব অনৈতিক কার্যক্রম। মানুষকে আকৃষ্ট করতে টিভি পর্দায় ঘুরছে জুয়ার স্পিন। এসব বন্ধে টাস্কফোর্স গঠনের পরামর্শ দিয়েছেন অপরাধ বিজ্ঞানীরা। ক্যাসিনো কিং হিসেবে পরিচিত এনু, রুপন বা সম্রাটরা র্যা বের অভিযানে ধরা পড়েছে। তবে বসে নেই জুয়াড়িরা। এবার লোভের ফাঁদে ফেলে ক্যাসিনোর ভোল পাল্টিয়ে প্রকাশ্যে চলছে ভিন্ন ধরনের এক টাকার গেম। এমন অভিযোগ উঠেছে অনলাইন শপ দারাজের বিরুদ্ধে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও টিভি পর্দায় বহুমুখী প্রচারের মাধ্যমে প্রতারণার ফাঁদ পেতেছে তারা। মাত্র এক টাকায় দামি গাড়ি, মোটরসাইকেল ও মোবাইলসহ বহু অফারের ছড়াছড়ি। আর এতেই হুমড়ি খেয়ে পড়ছেন অনেকেই। দেশে দারাজের প্রধান বাণিজ্যিক কর্মকর্তা ফুয়াদ আরেফিন নিশ্চিত করেছেন ক্যাম্পেইনের অনুমতি নেই তাদের। অনলাইন শপগুলো ব্যবসার নামে মানুষকে ঠকাচ্ছে। তবে এটি নিয়ন্ত্রণের দায়িত্ব ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের নয় বলে জানান মন্ত্রী। ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, অনলাইনের পুরো বিষয়টা যদিও আমরা শুরু করেছিলাম আইসিটি ডিভিশন থেকে। তবে এটার পুরো কর্মকাণ্ড বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের। এ বিষয়ে বাণিজ্যমন্ত্রীর সঙ্গে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করেও তাকে পাওয়া যায়নি। মানুষকে লোভের ফাঁদে ফেলে টাকা হাতিয়ে নেয়া, সরাসরি প্রতারণা বলে মনে করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্রিমিনোলজি বিভাগের শিক্ষক খন্দকার ফারজানা। তিনি বলেন, এই ব্যবসায়িক প্রতারণাকে আমি মনে করি জুয়া বা ক্যাসিনোর শামিল। স্পেশাল টাস্কফোর্স এর কথা আমরা অনেকদিন ধরে বলছি। যদি এটার বাস্তবায়ন করা না হয় তবে প্রলোভন দেখিয়ে সাধারণ মানুষকে ফাঁদে ফেলার যে একটি ব্যবসায়িক কার্যকলাপ শুরু হয়েছে, সেটা বন্ধ করা সম্ভব হবে না। লোভে পড়ে প্রতারণার ফাঁদে পা না দিতে সবাইকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছেন এই বিশেষজ্ঞ।

সূত্র: আরটিভি অনলাইন