শুক্রবার,২২শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বাসে আগুনে মদদদাতাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে: তথ্যমন্ত্রী

মুক্তখবর :
নভেম্বর ২৩, ২০২০
news-image

ঢাকা, সোমবার, ২৩ নভেম্বর ২০২০ (স্টাফ রিপোর্টার): ঢাকা-১৮ আসনে উপনির্বাচনের দিন বাসে আগুন ও পেট্রলবোমা নিক্ষেপের ঘটনায় মদদদাতাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। তিনি বলেছেন, যারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে তারা যেমন অপরাধী, আর এ নিয়ে যারা মিথ্যাচার করে এবং দুষ্কৃতকারীদের আড়াল করার চেষ্টা করেছেন তারাও অপরাধী। রবিবার তথ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন তথ্যমন্ত্রী। হাছান মাহমুদ বলেন, ২০১৩-১৪ সালে যেভাবে বাসে আগুন ও পেট্রলবোমা নিক্ষেপ করা হয়েছিল ঠিক সেভাবেই করা হয়েছে। বিএনপি বলতে পারত, কারা এ কাজটি করেছে তাদের খুঁজে বের করার পর সেটা যদি আমাদের দলীয় কেউ হয় তাদের বিরুদ্ধে তারা দলগতভাবে ব্যবস্থা নেবে। তারা সে কথা না বলে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ বিএনপির ঊর্ধ্বতন নেতারা বিষয়টি নিয়ে মিথ্যাচার ও অস্বীকার করেছেন। মিথ্যাচার ও অস্বীকার করে তাদের দলের মধ্যে যেসব দুষ্কৃতকারী আছে তাদের আড়াল করার চেষ্টা করেছেন। তিনি আরও বলেন, আপনারা জানেন এর আগে ভিডিও ফুটেজ দেখে অনেককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অতি সম্প্রতি যুবদল, ছাত্রদলের কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তারা স্বীকার করেছে বনানীতে বসে এ পরিকল্পনা হয়েছে, কোথা থেকে অর্থ এসেছে সেগুলোও তারা স্বীকার করেছে। দেশে গণতন্ত্র নেই বলে বিএনপি নেতা গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের করা মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় তথ্যমন্ত্রী বলেন, গয়েশ্বর বাবু সকালবেলা একবার শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে বিষোদ্গার করেন আবার বিকেলবেলাও করেন। দেশে গণতন্ত্র হরণ করেছিল বিএনপি। গণতন্ত্র হরণ করে বন্দুক উঁচিয়ে ক্ষমতা দখল করেছিলেন জিয়াউর রহমান। ১৫ ফেব্রুয়ারি নির্বাচনে গণতন্ত্র ছিল? যখন বঙ্গবন্ধুর খুনিকে বিরোধী দলের নেতা বানিয়ে তার গাড়িতে পতাকা লাগিয়ে দেওয়া হয়েছিল তখন গণতন্ত্র হরণ করা হয়েছিল। জাতীয় সম্প্রচার নীতিমালা কোন পর্যায়ে আছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ প্রশ্নটি আইন মন্ত্রণালয়কে করলে ভালো হতো। কারণ আমরা এক বছরের বেশি সময় ধরে আইন মন্ত্রণালয়ের দিকে তাকিয়ে আছি। আমি আশা করব, সহসা আইন মন্ত্রণালয় থেকে তা আমাদের কাছে আসবে।