বুধবার,২৭শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

পানির সাথে গুড়াদুধ মিশিয়ে নকল গরুর দুধ তৈরি করায় ১ বছরের কারাদণ্ড

মুক্তখবর :
নভেম্বর ২৫, ২০২০
news-image

ঢাকা, বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০ (নিজস্ব প্রতিনিধি): মানিকগঞ্জের সাটুরিয়ায় পানির সাথে গুড়াদুধ মিশিয়ে নকল গরুর দুধ বানানোর সময় হাতে নাতে ধরা পড়েছে আব্দুর রাজ্জাক (৬০) নামে এক ব্যক্তি। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত তাকে এক বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন। এ সময় ২৭০ কেজি নকল দুধ ও দুধ তৈরিতে ব্যবহৃত ক্যামিক্যাল জব্দ করা হয়। বুধবার সকালে সাটুরিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আশরাফুল আলম এই অভিযান ও ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। আব্দুর রাজ্জাক সাটুরিয়া উপজেলার ফুকুর হাটি গ্রামের মৃত বিষুরুদ্দিনের ছেলে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার আশরাফুল আলম জানান, গোপন সংবাদে তিনি জানতে পারেন আব্দুর রাজ্জাক দীর্ঘদিন ধরে নিজ বাড়িতে পানির সাথে গুড়া দুধ মিশিয়ে গরুর দুধ বলে ঢাকায় বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে বিক্রি করছেন। সকালে সেখানে অভিযানে গিয়ে নকল দুধ তৈরির সময় তাকে হাতে নাতে ধরা হয়। ৯ গ্যালন নকল দুধ ও ২ কেজি ক্যামিক্যাল পাউডারসহ তাকে আটক করা হয়। পরে নিরাপদ খাদ্য আইনের ২৫ ধারায় তাকে ১ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। জব্দ দুধ গুলো নষ্ট করা হয়েছে।

নকল দুধ ব্যবসায়ী আব্দুর রাজ্জাক জানান, তিনি প্রতিদিন ৮ থেকে ৯ মণ দুধ ঢাকায় বিভিন্ন মহাজনদের কাছে সরবরাহ করেন। এক মণ পানির সাথে ৫ কেজি ইকোজেড ও ১০০ গ্রাম এরারুট পাউডার দিলেই দুধ তৈরি হয়ে যায়। তিনি বলেন, তার মতো অনেকেই এভাবে দুধ তৈরি করে ঢাকায় পাঠান। স্থানীয় বাজারে ৭০ থেকে ৮০ টাকা কেজি দরে গরুর দুধ বিক্রি হলেও, তৈরি দুধ তারা ঢাকায় বিক্রি করেন ৫০ টাকা কেজিতে। ঢাকায় পাঠানো এক মণ দুধের সাথে ১৫ কেজিই নকল দুধ মেশানো হয় বলে জানান আব্দুর রাজ্জাক।