শুক্রবার,৫ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

দুধ চা খেয়েও কমবে ওজন

মুক্তখবর :
জানুয়ারি ২৫, ২০২১
news-image

ওজন কমানোর ক্ষেত্রে ব্ল্যাক টি, গ্রিন টি, অলং এবং বিভিন্ন ধরনের হারবাল চায়ের কথা অনেকেই শুনেছেন। তবে স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে ওজন কমানোর তালিকায় দুধের চা নেই বললেই চলে। ওজন কমানোর ক্ষেত্রে দুগ্ধজাত খাবার অনেকেই বাদ দিয়ে থাকেন। কিন্তু সাধারণ কিছু উপায়ে দুধ চা’কে স্বাস্থ্যসম্মত এবং ওজন কমানোর ক্ষেত্রে সহায়ক করে তুলতে পারেন। ওজন কমানোর চেষ্টায় থাকলে দুধ চা নিচের উপায়ে তৈরি করতে হবে।

উপকরণ: ১ কাপ পানি, ১ চা চামচ চা পাতা, ১ চা চামচ কোকোয়া পাউডার, ১/২ ইঞ্চি আদা (কুচি করা), ১/২ ইঞ্চি দারুচিনি, ১/২ চা চামচ গুড়, ২-৩ চা চামচ দুধ।

তৈরি প্রণালি: একটি প্যানে ২ কাপ পানি নিন। এতে দারুচিনি এবং আদা দিন। ১-২ মিনিট ফুটিয়ে নিন। এবার চা পাতা এবং দুধ দিয়ে সেদ্ধ করতে থাকুন। একটি কাপে চা ঢেলে নিন। এতে গুড় এবং কোকোয়া পাউডার নেড়েচেড়ে নিন। ওজন কমাতে সহায়ক চা পরিবেশনের জন্য প্রস্তুত।

সাধারণ চায়ের সঙ্গে এই চায়ের পার্থক্য: সাধারণ চা তৈরিতে সাধারণত কম পানি এবং প্রচুর দুধ ব্যবহার করা হয়। এতে প্রচুর চিনি ব্যবহারের কারণে উচ্চমাত্রায় ক্যালরি থাকে। অন্যদিকে স্পেশাল এই চায়ে কম পরিমাণে দুধ এবং চিনির পরিবর্তে গুড় ব্যবহার করা হয়। বিভিন্ন ধরনের মসলা এতে ব্যবহার করা হয় যেগুলো ওষধি গুণ সম্পন্ন।

এই চায়ের স্বাস্থ্য উপকারিতা: দিনে এক থেকে দুইবার এই চা পান করতে পারেন। তবে খালি পেটে এবং খাবার খাওয়ার কাছাকাছি সময়ে পান করা থেকে বিরত থাকতে হবে। এই চায়ে ব্যবহৃত আদা এবং দারুচিনি হজমক্রিয়ার উন্নতিতে সহায়ক। এটি ওজন চর্বি পোড়াতে এবং দ্রুত ওজন কমাতে সহায়ক। কোকোয়া পাউডারে উচ্চমাত্রায় ফাইটোনিউট্রিয়েন্টস রয়েছে তবে এতে চর্বি এবং চিনির পরিমাণ খুবই কম।

গবেষণায় দেখা গেছে, কোকোয়া হজমক্রিয়া নিয়ন্ত্রণ করে এবং দীর্ঘক্ষণ ক্ষুধা নিয়ন্ত্রণ করে। এমনকি দুধও ক্ষুধা নিয়ন্ত্রণ করে। গুড় পেটের চর্বি দ্রুত কমাতে সহায়তা করে। যারা স্বাস্থ্যসম্মতভাবে ওজন নিয়ন্ত্রণ করতে চান এই চা তাদের জন্য উপকারী।