শনিবার,২৪শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

শাবি শিক্ষার্থীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

মুক্তখবর :
ফেব্রুয়ারি ৯, ২০২১
news-image

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবি) তৌহিদুল আলম প্রত্যয় নামের এক শিক্ষার্থীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার রাত সোয়া ৯টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের পার্শ্ববর্তী এলাকা নয়াবাজারের স্বপ্নীল সুপার মার্কেট মেসের দ্বিতীয় তলার ৬ নম্বর কক্ষ থেকে তৌহিদুলের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন জালালাবাদ থানার ওসি মোহাম্মদ নাজমুল হুদা খান। জানা গেছে, নিহত তৌহিদুল মাগুরা জেলার মোহাম্মদপুর উপজেলার এসএম জাহিদুল আলমের সন্তান। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র ছিলেন। তৌহিদুলের মেসের সদস্য নাহিদুল ইসলাম ও আবু নাইম, রোববার রাত সাড়ে দশটার দিকে একসঙ্গে বেশ কয়েকজন একটা রুমে বসে আড্ডা দিচ্ছিলেন। এমন সময় তৌহিদুল এসে তাদের কিছু সময় সঙ্গ দিয়ে ঘুমাতে যাবেন বলে সবাইকে গুড নাইট বলে বিদায় নেন। নাইম বলেন, ওটাই ছিল তার শেষ কথা। পরের দিন সোমবার সকালে ১১টার দিকে তার রুমের সামনে থেকে ডাকাডাকি করা হলে কোন সাড়াশব্দ পাওয়া যায়নি। পরে আবারও দুপুর দুইটার দিকে তাকে ডাকলে তখনও কোন সাড়াশব্দ পাওয়া যায়নি। এতে সবাই মনে করেছিল তৌহিদুল হয়তো ঘুমিয়ে আছে। এদিকে তৌহিদুলের বাবা তাকে ফোনে না পেয়ে রাত নয়টার দিকে ওই মেসের নাসির নামের এক শিক্ষার্থীর কাছে ফোন দেন। তিনি জানান, তৌহিদুলকে ফোনে পাচ্ছেন না এবং তার খোঁজ নিতে বলেন। নাসির বাইরে থাকায় নাহিদুল ইসলাম নামে মেসের অন্য আরেক শিক্ষার্থীকে খোঁজ নিতে বলেন। নাহিদুল বলেন, তখন আমি এবং আশিক (মেসের অন্য ছাত্র) মিলে রুমের দরজা ভাঙার চেষ্টা করি। পরে দরজা ভেঙে রুমে ঢুকে দেখি সে জানালার গ্রিলে প্লাস্টিকের রশির সঙ্গে ঝুলে আছে। এরই মধ্যে মেসের এবং আশেপাশের অনেকেই সেখানে জমা হয়। আমরা তখন দ্রুত রশি কেটে তাকে নামাই। কিন্তু পরে বুঝতে পারি সে আর বেঁচে নেই। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন এবং পুলিশ প্রশাসন এসে লাশ উদ্ধার করে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর আবু হেনা পহিল বলেন, ঘটনাটি শুনে আমি অত্যন্ত মর্মাহত হয়েছি। পুলিশ এসেছে, ওর পরিবারের সদস্যরা আসছেন। তার লাশ ওসমানী মেডিকেলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। জালালাবাদ থানার ওসি মোহাম্মদ নাজমুল হুদা খান বলেন, আপাত দৃষ্টিতে মনে হচ্ছে তিনি গলায় ফাঁসি দিয়েছেন। তার শরীরে আঘাতের কোন চিহ্ন নেই। তবে ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর আসল কারণ জানা যাবে।