রবিবার,১৮ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

কাপ্তাই হ্রদ থেকে উদ্ধারকৃত অজ্ঞাত লাশের পরিচয় মিলেছে

মুক্তখবর :
মার্চ ৬, ২০২১
news-image

রিপন মারমা কাপ্তাই (রাঙ্গামাটি): রাঙ্গামাটি লংগদু কাপ্তাই হ্রদ থেকে উদ্ধার হওয়া লাশের পরিচয় পাওয়া গেছে নিহত যুবকের নাম প্রসনজিৎ সূত্রধর (৩০)। তিনি টাঙ্গাইল জেলা সদরের ১৫ নং ওয়ার্ডের বিশ্বাস বেতকা এলাকার মঙ্গল সূত্রধরের ছেলে। লংগদু থানা পুলিশ জানায়, নিহত যুবকের মোবাইল ফোনের কললিস্টের সূত্র ধরে জানা যায়, লংগদু সরকারি মডেল কলেজের এক নারী প্রভাষকের সঙ্গে তার যোগাযোগ ছিল। পরে ওই প্রভাষককে জিজ্ঞাসাবাদে নিহত যুবকের পরিচয় পাওয়া যায়। পুলিশ আরও জানায়, নিহত যুবকের সঙ্গে প্রভাষকের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সেই সুবাদে প্রসনজিৎ গত সোমবার (১ মার্চ) সকালে লংগদুতে আসে এবং নারী প্রভাষকের সঙ্গে দেখা করে। এরপর প্রসনজিৎকে মাইনী বাজারে পৌঁছে দিতে কলেজের এক কর্মচারীর সাহায্য নেন প্রভাষক। তিন জন মিলে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কলেজ এলাকা থেকে পায়ে হেঁটে মাইনী বাজারের উদ্দেশে যাত্রা করেন। যাওয়ার পথে আর্মি জোনের টাইগার টিলা নামক স্থান থেকে বিদায় নেন প্রভাষক। এ সময় দুজনের মধ্যে বাগ-বিতণ্ডা হয় বলে জানায় পুলিশ। প্রভাষক ফিরে আসলেও থেকে যান প্রসনজিৎ ও কলেজের কর্মচারী। ১৫-২০ মিনিট পর কলেজ কর্মচারী যুবক ফিরে আসেন কলেজে। এরপর প্রসনজিৎ মাইনীবাজারে পৌঁছেছেন কিনা তা জানতে তার মোবাইলে কল দিলে বন্ধ পাওয়া যায়। এ ঘটনার তিন দিন পর প্রসনজিতের মৃতদেহ পাওয়া যায় টাইগার টিলার পাশে কাপ্তাই হ্রদ থেকে। এ বিষয়ে লংগদু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আরিফুল আমিন বলেন, ‘ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে প্রভাষক ও কলেজের কর্মচারীকে আটক করা হয়েছে। নিহত প্রসনজিতের স্বজনরা লাশ শনাক্ত করেছেন এবং হত্যার দায়ে এজাহার জমা দিয়েছেন। মামলার প্রস্তুতি চলছে। শনিবার সকালে অভিযুক্তদের কোর্টে তোলা হবে।’ আর নিহত প্রসনজিৎ কি প্রেমে ব্যর্থ হয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নিলেন, নাকি তাকে হত্যা করা হয়েছে? এমন প্রশ্নই ঘুরপাক খাচ্ছে স্থানীয়দের মাঝে। তবে নিহতের পোস্টমর্টেম রিপোর্ট বা ভিসেরা পরীক্ষার পরই হয়তো জানা যাবে এই মৃত্যুর আসল রহস্য– এমনটি বলছে পুলিশ।