শুক্রবার,৭ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সুস্থ থাকতে কালোজিরা খান

মুক্তখবর :
এপ্রিল ১৯, ২০২১
news-image

কালোজিরাকে সব রোগের মহৌষধ বলা হয়। মহানবী হজরত মোহাম্মদ (সা.) বলেছেন, কালোজিরা মৃত্যু ব্যতীত সকল রোগেরই মহৌষধ। আজ আমরা একজন পুষ্টিবিদের কাছ থেকে কালোজিরার পুষ্টিগুণ সম্পর্কে জানব। কালোজিরার পুষ্টিগুণ নিয়ে বিস্তারিত জানিয়েছেন পুষ্টিবিদ ছাঈদা লিয়াকত। তিনি বলেন, কালোজিরা সম্পর্কে আমরা সকলেই জানি এবং সৃষ্টিকর্তা ছোট ছোট এই কালোজিরার মাঝে অনেক বিশাল ক্ষমতা দিয়েছেন। কালোজিরা অ্যান্টিসেপটিক হিসেবে কাজ করে। কালোজিরায় রয়েছে ভিটামিন এ, সি, লিনোলিক ও লিনোরেলিক অ্যাসিড; যা আমাদের শরীরকে সুস্থ রাখতে বিশেষভাবে কার্যকর। কালোজিরার অ্যান্টিসেপটিক উপাদান আমাদের বিভিন্ন রকম ঠাণ্ডাজনিত সমস্যা, কাশি; এসব থেকে আমাদের মুক্ত রাখে। যাঁদের গ্যাসের সমস্যা রয়েছে, তাঁরা যদি কালোজিরা খেয়ে থাকেন, তাহলে দেখা যাবে এই সমস্যা দূর হয়।

পুষ্টিবিদ ছাঈদা লিয়াকত বলেন, একেক জনের পরিপাকক্রিয়া একেক রকম। এ ক্ষেত্রে হয়তো অনেকের সমস্যা হতে পারে। কাজেই কালোজিরা খেতে হলে সে বিষয়টি লক্ষ রাখবেন এবং বুঝেশুনে কালোজিরা খাবেন। ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য উপকারী কালোজিরা। কালোজিরায় রয়েছে লিনোলিক ও লিনোরেলিক অ্যাসিড। আমাদের প্রতিদিনকার বিভিন্ন রকমের স্ট্রেস আসে বা আলট্রাভায়োলেট রে-র প্রভাবে চামড়ায় বিভিন্ন রকম প্রভাব দেখা যায়, এই লিনোলিক ও লিনোরেলিক অ্যাসিড থাকায় আমাদের চামড়াকে সুরক্ষা দেয় কালোজিরা। কাজেই যাঁরা চামড়ার সুরক্ষা পেতে চান, তাঁরা কিন্তু কালোজিরা প্রতিদিন একটু করে ভর্তা হিসেবে বা কালোজিরার তেল বিভিন্নভাবে খেতে পারেন। বলা হয়, যাঁরা স্তন্যদায়ী মা, তাঁরা যদি কালোজিরার ভর্তা খান, এতে কিন্তু দুধের পরিমাণ বৃদ্ধি পায়। এ সময় কালোজিরা খেলে বিভিন্ন রকম… যদি স্ট্রেস থাকে, তাঁদের যদি কোনো ঘা থাকে, এটা কিন্তু শুকাতে সাহায্য করে। কাজেই স্তন্যদায়ী মায়েরা কালোজিরা ভর্তা হিসেবে খেতে পারেন।

এ পুষ্টিবিদ আরও বলেন, কালোজিরা মধু সহযোগেও খেতে পারেন। এটা আরও উপকারী। শিশুদেরও চেষ্টা করবেন, যারা দুই বছরের ওপরে রয়েছে, যারা হজম করতে পারে; শীতের সময় তারা ঠাণ্ডা থেকে পরিত্রাণ পাবে, সর্দি-কাশি… বিভিন্ন রকম রোগ প্রতিরোগ ক্ষমতা গড়ে উঠবে এবং তারা সুস্থভাবে জীবনযাপন করতে পারবে। লিভারের জন্য দায়ী আলফা টক্সিন নামক উপাদান, এই বিষটিকে ধ্বংস করে কালোজিরা। কাজেই লিভার সুস্থ রাখতে হলে আমরা প্রতিদিন কালোজিরা খেতে পারি এবং সুস্থতা বজায় রাখতে কালোজিরার ভর্তা এবং কালোজিরার তেল, যেভাবেই আপনি খান না কেন, স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে গ্রহণ করলে আপনি স্বাস্থ্যগত নানা উপকার পাবেন কালোজিরা থেকে।