রবিবার,১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

হোটেল-রেস্তোরাঁ খুলে দেয়ার দাবি মালিক সমিতির

মুক্তখবর :
আগস্ট ২, ২০২১
news-image

ঢাকা, সোমবার, ০২ জুলাই ২০২১ (নিজস্ব প্রতিনিধি): বৈশ্বিক মহামারি করোনা সংক্রমণ রোধে কঠোর লকডাউনে হোটেল-রেস্তোরাঁ বন্ধ রয়েছে। দীর্ঘদিন বন্ধের কারণে টিকে থাকার লড়াইয়ে হিমশিম খাচ্ছেন ব্যবসায়ী ও সংশ্লিষ্টরা। এই পরিস্থিতিতে আসছে ৫ আগস্টের পর স্বাস্থ্যবিধি মেনে, হোটেল-রেস্তোরাঁ স্বাভাবিক নিয়মে খোলা রাখতে চান মালিকরা। তবে এটি করা সম্ভব না হলে অর্ধেক আসনে বসিয়ে হোটেল-রেস্তোরাঁ চালুর দাবি জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। আজ সোমবার (২ আগস্ট) বেলা সাড়ে ১১টায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) নসরুল হামিদ মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ রেস্তোরাঁ মালিক সমিতি প্রধানমন্ত্রীর কাছে হোটেল-রেস্তোরাঁ খুলে দেয়ার পাশাপাশি অন্যান্য প্রস্তাবনা তুলে ধরেছেন।

সমিতির মহাসচিব ইমরান হাসান লিখিত বক্তব্যে বলেন, ‘করোনার আঘাতে রেস্তোরাঁ সেক্টর সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী কখনো অর্ধেক আসনে বসিয়ে আবার কখনো শুধু অনলাইন/টেকওয়ের মাধ্যমে আমাদের ব্যবসা সীমিত রেখেছি। কিন্তু টেকওয়ে দিয়ে ব্যবসা চালানো সম্ভব নয়।’ রেস্তোরাঁ মালিক সমিতি এই নেতা আরও বলেন, ‘শুধু টেকওয়ের মাধ্যমে এখন ব্যবসা চলছে। এতে করে বিক্রি হচ্ছে না। রেস্তোরাঁ ব্যবসায়ীরা আজ দিশেহারা ও বর্তমানে নানাবিধ সমস্যায় জর্জরিত।’

তাদের দাবি, দেশে ৬০ হাজার রেস্তোরাঁয় ৩০ লাখ কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং প্রায় দুই কোটি মানুষ প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িত রয়েছে। তারা এখন মানবেতর জীবন-যাপন করছে। দেশে শতকরা ৮০ ভাগ রেস্তোরাঁ বন্ধ রয়েছে। বর্তমানে টেকওয়ে, পার্সেল ও অনলাইন ডেলিভারি করছে এমন প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা মাত্র ২ থেকে ৩ শতাংশ। প্রধানমন্ত্রীর কাছে রেস্তোরাঁ খুলে দেয়ার পাশাপাশি অন্যান্য প্রস্তাবনা তুলে ধরে ইমরান হাসান বলেন, ‘হোটেল রেস্তোরাঁ ব্যবসাকে চলমান রাখার জন্য রানিং ক্যাপিটাল হিসেবে এসএমই খাত থেকে এই সেক্টরে ২০ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ প্রদান করুন। যা কিনা সহজ শর্তে, স্বল্পসুদে জামানতবিহীন এবং দীর্ঘমেয়াদি ঋণ হবে। রেস্তোরাঁ খাতটি একটি সেবাখাত, ফলে মালিক-শ্রমিকদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে করোনার টিকা প্রদান করা জরুরি। এ বিষয়ে সুদৃষ্টি দেবেন এটাই আমাদের দাবি।’